দেশের মহিলাদের যৌনাঙ্গে গুলি করে তাদের বিদ্রোহী মনোভাবকে থামাতে হবে, মন্তব্যের জেরে বিতর্কের মুখে ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট

দেশের মহিলাদের যৌনাঙ্গে গুলি করে তাদের বিদ্রোহী মনোভাবকে থামাতে হবে, মন্তব্যের জেরে বিতর্কের মুখে ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট

দেশের মহিলা কমিউনিস্টদের বিদ্রোহী মনোভাব থামানোর জন্য তাঁদের যৌনাঙ্গে গুলি করার নির্দেশ দিলেন ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুর্তাতে, যৌনাঙ্গ না থাকলে কোনও কাজই হবে না ওদের দিয়ে।সম্প্রতি আত্মসমর্পণ করা প্রাক্তন কমিউনিস্ট গেরিলাদের নিয়ে বৈঠকে বসে এ কথা বলেন দুতার্তে। পরে অবশ্য তাঁর ভাষণের যে সরকারি বয়ান প্রকাশ করা হয়, তাতে আপত্তিকর শব্দটি নেই। কিন্তু স্থানীয় মিডিয়ার খবর, তিনি বৈঠকে একাধিকবার সেটি উচ্চারণ করেন।

বহু মানবাধিকার সংগঠনের পক্ষ থেকে এই মন্তব্য ঘিরে সমালোচনা উঠে আসছে। এটাই প্রথম নয়, এর আগেও বহু মহিলা রাজনীতিককে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য শোনা গিয়েছে দুতার্তের কাছে। সেকানে বামপন্থী মনোভাবাপন্ন বহু বিদ্রোহী শক্তিই রাষ্ট্রবিরোধিতার পথে বেছে নিয়েছে। এদিকে, যে মহিলারাই তাঁর সমালোচনা করেন, তাঁকেই কদর্য ভাষায় আক্রমণ শানান দুতার্তে। আপাতত তাঁর এই নয়া মন্তব্য ঘিরে জল কতদূর যায় সেটিই দেখার। এজন্য অনেকেই তাঁকে 'পূর্বের ডোনাল্ড ট্রাম্প ' বলে আখ্যা দেন।

দুতার্তে এর আগে অপহৃত এক অস্ট্রেলিয় মহিলার ধর্ষণ নিয়ে মজা করে খবরের শিরোনামে এসেছিলেন। তিনি সে সময় ছিলেন দাভাওয়ের মেয়র।