নিয়ম না মানাতেই কাঠমান্ডু বিমান দুর্ঘটনা, উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

নিয়ম না মানাতেই কাঠমান্ডু বিমান দুর্ঘটনা, উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

নেপালের কাঠমান্ডুতে ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনায় নিহত প্রায় পঞ্চাশের বেশি,জানা যাচ্ছে, বিমানের পাইলট কাঠমান্ডু এটিসির নির্দেশ অমান্য করেন, যার কারণ এই দুর্ঘটনা।ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়েছে পাইলট ও এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের কথপোকথনের অংশবিশেষ। তাতে স্পষ্ট নির্দেশ দেওয়া বা বোঝা, কোনও ক্ষেত্রে সমস্যাতেই ভুল জায়গায় অবতরণ করে বিমানটি। এর পরই তাতে আগুন ধরে যায়। এদিকে, কাঠমাণ্ডু বিমানবন্দরের এয়ারপোর্টের ম্যানেজার মিস্টার ছেত্রী জানিয়েছেন, অবতরণের আগেও পাইলট জানিয়েছিলেন সবকিছু ঠিকঠাকই আছে। তাহলে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে কি এমন হল যাতে বিমান মাঠের উপরে ভেঙে পড়ল? এমন প্রশ্নও তুলেছেন ছেত্রী। জানা গিয়েছে, ভেঙে পড়া বিমানটি ১৮ বছরের পুরনো।

 

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের সিইও ইমরান আসিফের অভিযোগ, কাঠমান্ডু এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল ভুল সঙ্কেত দেয়। কিন্তু ত্রিভুবন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ সেই অভিযোগ অস্বীকার করে দাবি করেছে, বিমান চালক তাদের বার্তা অমান্য করে ভুল দিকে নেমে পড়েন। বিমানটি নামার অনুমতি পাওয়ার একটু পরেই চালক বলেন, তিনি উত্তর দিক দিয়ে নামতে চান। ইউএস বাংলা বিমানসংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, বিমানের পাইলট ক্যাপ্টেন আবিদ সুলতান বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত পাইলট। তাঁর ৫,০০০ বেশি ঘণ্টা উড়ানের অভিজ্ঞতা রয়েছে। শুধুমাত্র বোম্বাইডার ড্যাস ৮ কিউ৪০০ বিমানেই তাঁর ১,৭০০ ঘণ্টার বেশি উড়ানের অভিজ্ঞতা রয়েছে। এহেন অভিজ্ঞ পাইলট কী করে এমন শিশুসুলভ ভুল করতে পারেন বোধগম্য হয় না।