প্রধানমন্ত্রীত্ব পদ পেয়ে সরকারি আবাসনে থাকতে চাননা ইমরান খান

প্রধানমন্ত্রীত্ব পদ পেয়ে সরকারি আবাসনে থাকতে চাননা ইমরান খান

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদে বসতে চলা ইমরান খান জানিয়ে দিলেন, তিনি প্রধানমন্ত্রীর সরকারি আবাসে থাকবেন না, সেই ‘বিলাসবহুল’ ভবনকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মতো জনসাধারণের ব্যবহারযোগ্য কোনও প্রতিষ্ঠানে পরিণত করা হবে। ক্রিকেট অধিনায়ক, প্লেবয় থেকে দুর্নীতিবিরোধী মসিহা। সেখান থেকে পাকিস্তানের মসনদের 'সুলতান' হতে চলেছেন পাকিস্তানের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। ক্রিকেট মাঠে কীর্তি গড়ার পর এবার রাজনীতির ময়দানেও নিজের জাত চেনালেন ৬৫ বছরের যুবক। অথচ এই সেদিনও পাকিস্তানের রাজনীতিতে 'বিচ্ছিন্ন' হিসেবেই গণ্য হচ্ছিলেন ইমরান খান। কিন্তু ২২ বছরের পরিশ্রমের পর তাঁর উপরে ভরসা রাখলেন পাক নাগরিকরা। যদিও বিরোধীদের অভিযোগ, ব্যালটে ব্যাপক রিগিং করেছে ইমরানের দল। তাঁকে জেতানোর নেপথ্যে রয়েছে দেশের সেনা ও আইএসআই।
৬৫ বছর বয়সি পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফ পার্টির প্রধান বলেন, এতদিন দেখেছি, ক্ষমতায় যে-ই আসে, বদলে যায়। আমার ক্ষেত্রে তা হবে না। আমি ২২ বছর আগে রাজনীতিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত নিই শাসন ব্যবস্থা ভেঙে পড়তে দেখে, পাকিস্তানে দুর্নীতি মাথাচাড়া দেওয়ায়। ইমরান এও বলেন, কেন রাজনীতিতে এসেছি, বুঝিয়ে বলছি। রাজনীতি আমায় কিছু দিতে পারেনি। আমি চাই, আমার নেতা কয়েদ-ই-আজম মহম্মদ আলি জিন্নার স্বপ্নের দেশ হয়ে উঠুক পাকিস্তান।
পাশাপাশি পাকিস্তানকে ধনী ক্রমশ আরও ধনী হবে, অন্যদিকে গরিব আরও গরিব, এই চিরাচরিত চক্র থেকে মুক্ত করার প্রতিশ্রুতিও দেন ইমরান। বলেন, বদল শুরু করতে হবে একেবারে মাথা থেকে।