পাকিস্তান সরকার যথাযথ তথ্য প্রমান না দিতে পারলে হাফিজকে মুক্তি দেওয়া হবে

 পাকিস্তান সরকার যথাযথ তথ্য প্রমান না দিতে পারলে হাফিজকে মুক্তি দেওয়া হবে

মুম্বাই  হামলার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ সঈদকে গৃহবন্দি রাখার ক্ষেত্রে লাহোর হাইকোর্ট শুনানি জারি করেছে,পাক সরকার তাঁর বিরুদ্ধে যথাযথ প্রমান না দিতে পারলে হাফিজকে মুক্তি দেওয়া হবে বলেই জানিয়েছে লাহোর হাইকোর্ট

লস্কর-ই-তৈবা প্রধান সঈদ ও আরও ৪ জনকে গৃহবন্দি রাখা সংক্রান্ত মামলার যাবতীয় নথিপত্র নিয়ে গতকালের শুনানিতে হাজির হওয়ার কথা ছিল অভ্যন্তরীণ মন্ত্রকের সচিবের। কিন্তু তিনি না আসায় হাইকোর্ট ক্ষোভ জানিয়ে বলে, স্রেফ কয়েকটা প্রেস ক্লিপিংসের ভিত্তিতে কাউকে দিনের পর দিন আটকে রাখা যায় না।

ইন্টেরিয়ার সেক্রেটারিকে আগামী ১৩অক্টোবর অবধি সময় দেওয়া হয়েছে৷ যদি সেই সময়ের মধ্যে উপযুক্ত প্রমাণ দিতে না পারে তাহলে হাফিজ সৈয়দের শাস্তির মেয়াদ শেষ হবে৷

সৈয়দের আইনজীবী একে ডোগার জানিয়েছেন, জামাত-উদ-দাওয়া প্রধানের বিরুদ্ধে উপযুক্ত প্রমাণ ব্যাতীত এভাবে অভিযোগ আনা কার্যত বেআইনী৷ তিনি দাবি করেছেন, মার্কিন সরকারের চাপেই হাফিজ সৈয়দ এবং তার চার শাকরেদকে আটক করা হয়েছে৷

পাক সরকারের মনোভাব দেখে মনে হচ্ছে যে সরকারের কাছে হাফিজকে আটকে রাখা নিয়ে সেরকম প্রমাণ নেই। আদালতের এই মনোভাব থেকে স্পষ্ট যে জঙ্গি হাফিজ সঈদকে যে ছেড়ে দেওযা নিয়ে যথষ্ট তৎপরতা রয়েছে পাকিস্তানের লাহোর আদালতের তরফে। তবে অনেকেই গোটা বিষয়টিকে পাকিস্তানের রাজনৈতিক কৌশল বলে মনে করছে। যার দ্বারা তারা হাফিজকে গৃহবন্দি দসা থেকে ছাড়িয়ে আনার চেষ্টা করছে।