পাকিস্তানে জমিয়ে পার্টি করছেন ইব্রাহিম দাউদ

পাকিস্তানে জমিয়ে পার্টি করছেন ইব্রাহিম দাউদ

কয়েকদিন আগে যার মৃত্যু ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে ছিল সেই দাউদই নাকি এখন পাকিস্তানে,সরকারি তদারকিতে দারুন দিন কাটাচ্ছেন এমনকি বসের পার্টিতেও যোগ দিচ্ছেন,প্রাক্তন পাকি ক্রিকেটার জাভেদ মিয়াঁদাদের দেওয়া পার্টিতে হাজির হয়েছিল সে।

ইন্টেলিজেন্স এজেন্সি সূত্রে খবর, সম্প্রতি দাউদের অপারেশন হয়েছে। সে মারা যায়নি। কিছুদিন আগে দাউদ মারা গিয়েছে বলে খবর ছড়িয়েছিল। তারপর থেকেই গোয়েন্দারা নিয়মিত দাউদের খবর নেওয়া শুরু করেন। তারপরই জানা গিয়েছে, দাউদ এখন পুরোপুরি সুস্থ নয়। তবে হাঁটাচলা করতে বা বাইরে বেরতে কোনও সমস্যা নেই দাউদের।

৯৩-এর মুম্বই বিস্ফোরণের মাস্টারমাইন্ড দাউদ কিন্তু দিব্যি আছে পাকিস্তানের বন্দর শহর করাচিতে। পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা মুড়ে রেখেছে তাকে। তার দুপায়ে ভয়ানক গ্যাংগ্রিন হয়েছিল, তৈরি হয়েছিল কেটে বাদ দেওয়ার পরিস্থিতি। কিন্তু অপারেশনের পর সামলে উঠেছে দাউদ।

ঘটনা হল, দাউদের মেয়ে মাহরুখের বিয়ে হয়েছে মিয়াঁদাদের ছেলে জুনেইদের সঙ্গে। তাদের বাড়িতেই একেবারে নিকটাত্মীয়দের নিয়ে পার্টির আয়োজন করা হয়। সেখানেই দাউদ হাজির ছিল।

আন্তর্জাতিক জঙ্গি হিসেবে গণ্য দাউদের নিরাপত্তা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে আইএসআই। ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা বলয়ের একেবারে ভেতরে, এক নম্বরে পাহারায় রয়েছে তার সবথেকে বিশ্বাসী ডান হাত জাভেদ চিকনা। এই জাভেদ চিকনাও মুম্বই বিস্ফোরণের অন্যতম ওয়ান্টেড। তারপর নিরাপত্তার দ্বিতীয় বলয়ে আইএসআই, তৃতীয়টিতে পুলিশ। আইএসআইয়ের আশঙ্কা, ডি কোম্পানির মধ্যে কোনও চর ঢুকেছে। তাই দাউদের নিরাপত্তা এতটা বাড়িয়ে দিয়েছে তারা।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৩ সালের মুম্বই বিস্ফোরণ মামলায় শুক্রবার আবু সালেম সহ মোট পাঁচজনকে দোষী সাব্যস্ত করেছে আদালত। দাউদকেও কি শেষপর্যন্ত দেশে ফিরিয়ে শাস্তি দেওয়া সম্ভব, এই প্রশ্নটাই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে জনতার মনে। তা সম্ভব কিনা তা সময়ই বলবে।