ইন্দোনেশিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্প, সতর্কতা জারি গোটা দ্বীপে

ইন্দোনেশিয়ায় ভয়াবহ ভূমিকম্প, সতর্কতা জারি গোটা দ্বীপে

জোরাল ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল ইন্দোনেশিয়ার সুলাসি দ্বীপ। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৭.৫।ইন্দোনেশিয়ার মধ্যভাগে সুলাওয়েসি এলাকায় এই ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল বলে জানা গিয়েছে। মার্কিন জিওলজিক্যাল সার্ভের রিপোর্ট বলছে, মাটি থেকে ১০ কিমি গভীরে কম্পনের উৎপত্তিস্থল। ডোংগালা শহর থেকে উত্তর-পূর্বে তা ৩৫ কিমি দূরে অবস্থিত। এদিন শুক্রবার সকালে একই জায়গা ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছিল।

এর আগে, অগাস্ট মাসের শুরুর দিকে ভয়াবহ ভূমিকম্পে প্রায় বিধ্বস্ত হয়ে পড়ে ইন্দোনেশিয়া৷ ২৯ জুলাই ৬ দশমিক ৪ মাত্রার এক শক্তিশালী ভূমিকম্পে কেঁপে উঠেছিল লোম্বক দ্বীপ। তখন ১২ জনেরও বেশি মানুষ মারা যান৷  মার্কিন ভূতাত্ত্বিক সংস্থা বা ইউএসজিএস জানায়, শক্তিশালী ওই ভূমিকম্পের পর ৫ দশমিক ৪ মাত্রা থেকে ৪ দশমিক ৩ মাত্রার আরও বেশ কয়েকটি ভূমিকম্প অনুভূত হয়৷ ইন্দোনেশিয়ার ভূমিকম্প বিধ্বস্ত লোম্বক দ্বীপের অদূরেই রয়েছে বালি। ভিডিও ফুটেজে দেখা যায় ভূমিকম্পের সময় আতঙ্কিত হয়ে সেখানকার বাসিন্দারা ছুটোছুটি করছেন। রবিবারের মূল কম্পনের পর অন্তত ১৩০ বার আফটার শকে কেঁপে উঠেছে দ্বীপ।

২০০৪ সালে তীব্র কম্পনে কেঁপে ওঠে ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা। কম্পনের ফলে তৈরি হয় বিধ্বংসী সুনামি। এতে মৃত্যু হয় ১,২০,০০০ জনের। ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রায় ভয়ঙ্কর ভূমিকম্প ও পরে সুনামির জেরে ১৩টি দেশের মোট ২ লক্ষ ২৬ হাজার মানুষ মারা যান।