দেশের কয়েকটি বিখ্যাত স্থানের হোমস্টে-র ঠিকানা

দেশের কয়েকটি বিখ্যাত স্থানের হোমস্টে-র ঠিকানা

বেড়াতে যাওয়ার টিকিট কাটা মানেই খোঁজ  খোঁজ শুরু হয় হোটেলের,ভাল হোটেলের খোঁডজ পাওয়া গেলেও সেখানে গিয়ে ভাল খাবার জোটে খুব কম,আর যদি একটু অর্ড জায়গায় যাওয়া হয় তাহলে তো কোনো কথাই নেই,আবার অনেকে বাইরে গিয়ে বাঙালী রান্না খেতে বেশ পছন্দ করেন তাদের জন্য বেস্ট প্লেস হল হোমস্টে,বাড়ির মতো থেকে খেয় তৃপ্তি অর্জন করতে বেশ লাগবে,আর শরীরকেও সুস্থ রাখা যাবে,তাই আপনি কি এই বর্ষায় বেরোচ্ছেন নাকি,তাই সুখ পেতে এবং ভালভাবে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ভোগ করতে নীচের জায়গা গুলিতে ঘুরে আসুন এবং হোমস্টে তে থেকে আনন্দ উপভোগ করুন-

 

বিক্রম ও পারো রানাওয়াতের বাড়ি

জয়পুর বিক্রম ও পারো রানাওয়াতের জয়পুরের বাড়িও ঘরোয়া পরিবেশের। তবে তার সঙ্গে এখানে রয়েছে বিলাসের যাবতীয় সুবিধা। পারো একজন রাজপুত বংশধর, আর তাঁর স্বামী বিক্রম প্রাক্তন বায়ুসেনা অফিসার। নিশ্চিতভাবে তাঁদের বাড়িতে রয়েছে, রাজস্থানের গৃহস্থলির গন্ধ। রয়েছে বাগান , সুসজ্জিত বে়ড রুম। বাড়িতে হিসাবে পেতে পারেন, পারোর রান্না শেখানোর ক্লাসে যোগ দেওয়ার সুযোগ।

দেরাদুনের মেহরা দম্পতির বাড়ি

 

দেরাদুন বেড়াতে গেলে কোথায় থাকবেন দেরাদুনের আসল মজা পাহাড়ের শান্ত পরিবেশ। আর তা উপলব্ধি করার জন্য় আদর্শ জয়াগা দেরাদুনের মেহরা দম্পতির বাড়ি। শিবালিক হিল দেখতে পাবে বাড়ির বারান্দা থেকেই। এখানে পর্যটকরা শ্রীমতি মেহরার হাতের রান্না খেয়ে , তাঁর ভূয়সী প্রশংসা করেন। শুধু দেশ নয়, বিদেশ থেকেও এখানে পর্যটকরা এসে থাকেন।

সিরোহি হাউস

পুরনো দিল্লি গেলে কোথায় থাকবেন ভাবছেন পুরনো দিল্লি ঘুতে যাবেন, কিন্তু থাকবার জায়গা নেই। হোটেলের ঝঞ্ঝাট কাটিয়ে থাকতেই পারেন দিল্লির সিরোহি হাউসে । এই বাড়ি ছিল এক সময়ে সিরোহির মাহারাজার বাসস্থান। পুরনো দিনের অ্যান্টিক জিনিসপত্রে সাজানো এই বাড়িতে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘর পাওয়া যায়। সঙ্গ থাকছে, বাথরুম , কেবল টিভি, ককটেল লঞ্জ,। আরও আছে বেড়াতে গিয়ে এখানে পিকনিক করার বন্দোবস্তও করা রয়েছে। যেখানে বুফে থেকে বারবিকিউ সমস্ত করারই আয়োজন রয়েছে। ফলে বাড়ির বিলাসিতায় এখানে থাকা যায়।
 

কেরলের নেলপুরা , আলাপুঝা ও এস্টেট বাংলো কেরলের ব্যাক ওয়াটারের কাছেই ১৫০ বছরের প্রাচীন হেরিটেজ হোমস্টে রয়েছে। এই বাড়ি একটি সিরিয়ান খ্রীষ্টান পরিবারের বাড়ি। এখানে চাকো দম্পতি র বাড়িতে হোম স্টের ব্যবস্থা রয়েছে। যাঁরা দুজনেই অধ্যাপক। এছা়ড়া মুন্ডা কায়ামের অঞ্জু আব্রাহামের বাড়িতেও রয়েছে থাকার ব্যবস্থা । সঙ্গে থাকছে ঘরোয়া রান্না। বাড়ির চারিদিকে মনোরম দৃশ্য। সবমিলিয়ে অত্যন্ত মনোরঞ্জক এই বাড়ির ভৌগলিক অবস্থান।