নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহেই যেতে পারেন উত্তরবঙ্গে

নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহেই যেতে পারেন উত্তরবঙ্গে

শীতের ছুটি শেষ, অফিস কাছারি শুরু হয়ে গেছে, শীত মানেই পিকনিক আর ঘোরার মজা, শীতকালের সেরা ঘোরার ঠিকানা উত্তরবঙ্গ, ছোটো ছোটো পাহাড়ি এলাকায় রাত্রিবাস ও সারাদিন ঘোরার মজাই আলাদা, রইল সেরকম কয়েকটি ঠিকানা

লেপচাজগত

শহরের চেনা কংক্রিটের ঘোরাটোপ থেকে দূরে জঙ্গলে মোড়া এক আলাদা জগত এই লেপচাজগত। দার্জিলিং থেকে ১৯ কিলোমিটার দূরে ছোটো পাহাড়ি এলাকায় লেপচা উপজাতির মানুষদের বাস। বর্তমানে এই এলাকা জঙ্গলের আধিপত্যে রয়েছে। লেপচাজগতের একটা বিশাল অংশ জুড়ে রয়েছে রিজার্ভ ফরেস্ট। প্রকৃতিপ্রেমী মানুষদের কাছে এই জায়গা অবশ্যই ভালোলাগবার মতো।

রামধুরা

পাহাড়ের সেরা গ্রাম রামধুরা, সিকিম ও পশ্চিমবঙ্গের মাঝে অবস্থিত এই গ্রাম পর্যটকদের ভিড়ে এখনও ভরে ওঠে না। পাহাড় ঘেরা এই গ্রামের পাশ দিয়ে তিস্তা কুলকুল গতিতে বয়ে যায়। গোটা গ্রাম জুড়ে পাহাড়ি ফুলের চাষ হয়। সবমিলিয়ে এই জায়গার প্রাকৃতিক শোভা দেখতে হলে দার্জিলিং থেকে যেতে হবে এখানে।

জোরপোখরি

 দার্জিলিং থেকে ১৯ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত জোরপোখরি। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৭৪০০ ফুট ওপরে রয়েছে এক জলাশয় ঘেরা শহর জোরপখরি । এশহর লেপজগতের কাছেই। শহরের লেক বা জলাশয়ে পাখির আনাগোনা থাকে বলে এই শহরের নাম জরপখরি। এখানের জলাশয়ে প্রচুর হাঁসের আনাগোনা। এই শহরেও রয়েছে জঙ্গল, ধুপি ফরেস্ট।