ঘুরে আসুন পিরামিডের দেশ মিশরে

ঘুরে আসুন পিরামিডের দেশ মিশরে

ছোট বেলায় পিড়ামিড, মরুভূমি এসব বিষয়গুলো বইতে পড়ে মাঝে মাঝেই স্বপ্নে সেগুলি দেখতাম, কখনও উটের পিঠে আবার কখনও বা গাড়িতে, সেই নীলনদের দান মিশরের স্বপ্ন, ইতিহাসের পাতায় যা আজও অমর, সেখানকার ফ্যারাও, প্রিস্ট, মমি আজও আমাদের কাছে এক কৌতূহলের বিষয়, তবে সেই কৌতূহল মেটাতে গেলে মিশরে ঘুরে আসলে কেম হয়, দেখুন মিশরের কয়েকটিদর্শনীয় স্থান

 

আলেকজান্দ্রিয়া-   ৩৩১ খ্রিষ্ট পূর্বাব্দে এই শহর তৈরি করেছিলেন আলেকজ়ান্ডার। ভূমধ্যসাগরের উপকূলে অবস্থিত আলেজ়ান্দ্রিয়া মিশরের সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বন্দর শহর। ইতিহাস  প্রসিদ্ধ এই স্থানে বহু সম্রাট এসেছিলেন
 

দাহাব- একসময় উপকূলের ধারে একা পড়ে থাকা একটা নিঝুম গ্রাম ছিল দাহাব। কিন্তু তা এখন পুরোপুরি চেহারা পালটে ফেলেছে। দাহাব মিশরের সেরা হ্যাংআউট প্লেস। মিশরে গেলে অবশ্যই একটু বাড়তি সময় রাখুন দাহাবের জন্য।

দাহশুর-  নীলনদের পশ্চিম তীরে কায়রো থেকে দক্ষিণ দিকে  ৪০ কিলোমিটার দূরে। এখানে গেলে চারিদিকে দেখা পাবেন বড় বড় পিরামিডের। যেমনটা দেখেছিলেন দা মমি ছবিতে। 

আসোয়ান- এই বাঁধের কথা সকলেরই জানা, ভৌগলিক একটি স্থান, প্রাচীন মন্দিরে ঘেরা শহর আসওয়ান। এখানে এখনও দাঁড়িয়ে রয়েছে ফ্যারাওদের তৈরি করা মন্দির। যদিও তাদের বেশিরভাগই এখন ভগ্নস্তূপ।

কায়রো-  মিশরের রাজধানী কায়রো। এখানেই রয়েছে মিউজ়িয়াম অফ তাহির স্কয়্যার। কায়রোতে গেলেই তুতেনকামুন স্তম্ভ, মিশরের সুন্দরী রানী নেফারতিথির স্তম্ভ দেখতেপাবেন
স্পিনিক্স- মাথা মানুষের কিন্তু শরীর সিংহর। মিশরের বিখ্যাত স্ফিংসের দর্শন পেতে যেতে হবে গিজ়া।