মানতে পারবেন  না গোঁড়ামি, তাই আন্তর্জাতিক স্তর থেকে সরলেন ভারতীয় দাবাড়ু

মানতে পারবেন  না গোঁড়ামি, তাই আন্তর্জাতিক স্তর থেকে সরলেন ভারতীয় দাবাড়ু

এশিয়ান নেশনস কাপ চেস চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে নাম তুলে নিলেন ভারতের সৌম্যা স্বামীনাথন।আগামী ২৬ জুলাই থেকে ৪ আগস্ট ইরানের হামদান শহরে হবে এই প্রতিযোগিতা। কিন্তু, রক্ষণশীল ইসলামের দেশ ইরানে যে কোনও মহিলাকে কাপড় দিয়ে চুল ঢাকতে হয়। একে তাঁর ব্যক্তি অধিকারের আঘাত বলে মনে করেছেন সৌম্যা। সেই কারণেই প্রতিযোগিতায় অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই গ্র্যান্ড মাস্টার। সোশাল মিডিয়ায় সৌম্যা বলেন, 'জোর করে কেউ আমায় বোরখা বা হিজাব পরতে বাধ্য করবে সেটা আমার পছন্দ নয়। ইরানের বাধ্য়তামূলক বোরখা পরার আইনে আমার বাকস্বাধীনতা, চিন্তার স্বাধীনতা, চেতনা ও ধর্মের মতো ব্যক্তি অধিকারগুলি ক্ষুন্ন হয় বলে আমার মনে হয়েছে।

এই মুহূর্তে ভারতীয় মহিলা দাবাড়ুদের মধ্যে সৌ্ম্যার স্থান পঞ্চম, সারা বিশ্বে ক্রমতালিকায় তিনি ৯৭ নম্বরে আছেন। সৌম্যা জানান, প্রথমে এই প্রতিযোগিতা হওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশে, তারিখও ছিল ভিন্ন। পরে তা পাল্টে যায়। প্রতিযোগিতাটি ইরানে হওয়ায় তিনি ভারতীয় মহিলা দলের অংশ হতে চান না। একই সঙ্গে পুনের এই বছর ২৯-এর দাবাড়ু জানিয়েছেন, এটা একেবারেই তাঁর ব্যক্তিগত মত। এর সঙ্গে একমত অনেকে না-ই হতে পারেন। ফেসবুকে অবশ্য সৌম্যা অল ইন্ডিয়া চেস ফেডারেশনের কর্তাদের একহাত নিয়েছেন।

 

ফেসবুকে নিজের প্রোফাইলে প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি লেখেন, ''এশিয়ান নেশন কাপ চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে নাম তুলে নিতে আমি বাধ্য হচ্ছি। কারণ জোর করে কাউকে হিজাব বা বোরখা পরতে বলাটা খেলাধূলায় কোনও দেশের ধর্মীয় প্রভাব থাকা উচিত বলেই আমার মনে হয়। তাই এই ধরণের অফিসিয়াল চ্যাম্পিয়নশিপ আয়োজন করার আগে আয়োজকদের আরও বেশি যত্নবান হওয়া প্রয়োজন।''