প্রয়াত প্রাক্তন ফুটবলার সুকল্যাণ ঘোষ দস্তিদার

প্রয়াত প্রাক্তন ফুটবলার সুকল্যাণ ঘোষ দস্তিদার

প্রয়াত প্রাক্তন ফুটবলার সুকল্যাণ ঘোষ দস্তিদার। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে আজ সকালে একটি বেসরকারি হাসপাতালে মারা যান তিনি।১৯৬৮ সালে রাজস্থানে খেলে এই স্ট্রাইকার ওই মরশুমের লিগের ১০টি গোল করেছিলেন৷ তার পরের বছর চলে আসেন মোহনবাগানে। ১৯৭৩ সালে তিনি ছিলেন মোহনবাগান দলের অধিনায়ক৷ ১৯৬৯ থেকে ১৯৭৪ পর্যন্ত টানা মোহনবাগানে খেলেন তিনি৷ এর পরের বছর ১৯৭৫ সালে তিনি ইস্টবেঙ্গলে চলে যান এবং সেখানে এক বছর খেলেন৷

 

একইসঙ্গে প্রাক্তন দলকে চিরপ্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে লজ্জাজনকভাবে হারতে দেখে খারাপও লেগেছিল তাঁর। তবে মারকুটে স্বভাব তাঁকে বারবার বিতর্কে ফেলত। রেফারিকে ঘুষি মেরে সবচেয়ে বেশি নিন্দা কুড়িয়েছিলেন। ভালো মানের ফুটবলার হলেও ফুটবলার জীবন দীর্ঘায়িত নয়। ১৯৭৬ সালে টালিগঞ্জ অগ্রগামীর হয়ে শেষবার খেলতে নেমেছিলেন। টানা বড় ক্লাব খেলার পর ছোটো ক্লাবে খেলা মানসিকভাবে মেনে নিতে না পারাতেই দ্রুত অবসর নিয়ে নেন।তবে ১৯৭৩ সালে তাঁকে ঘিরে বিতর্ক দানা বাঁধে ময়দানে। সেই বছর দুই প্রধানের ম্যাচে ইষ্টবেঙ্গলের সুভাষ ভৌমিকের সঙ্গে সংঘর্ষে মাঠ ছাড়েন মোহনবাগানের শঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়। এই ঘটনায় ফলে মেজাজ হারান সুকল্যাণ ঘোষ দস্তিদার। ওই ডার্বি ম্যাচেই রেফারি বিশ্বনাথ দত্তকে ঘুষি মারেন। এই ঘটনা বাদ দিলে মাঠ ও মাঠের বাইরে অত্যন্ত ভালো মানুষ ছিলেন সুকল্যাণ৷