পৃথিবীর গা ঘেঁষে বেড়িয়ে গেল ভয়ঙ্কর গ্রহানু

পৃথিবীর গা ঘেঁষে বেড়িয়ে গেল ভয়ঙ্কর গ্রহানু

মহাবিশ্বে চরম ক্ষতির সম্ভাবনার কথা কয়েকদিন আগেই প্রকাশ্যে এনেছিল বিজ্ঞানীরা, এক মহাজাগতিক ঘটনাকে ঘিরে পৃথিবীর চরম দূর্ঘটনা ঘটবে বলেও ইঙ্গিত দিয়েছিলেন কিন্তু সেই ইঙ্গিত সফল হল না, পৃথবী বাসীর কাছে খুশির খবর বলা যেতে পারে কারন কক্ষপথ থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে সরে গেল সেই ভয়ঙ্কর গ্রহানু, শনিবার দুপুর থেকে গতিপথ পরিবর্তন, গতিপথ পরিবর্তন হওয়ায় উল্কাপাতও অনেক কম 

 সিগারেটের আকারের এই পাথরের মতো বস্তুকে অনেকেই মনে করছেন এটি ভিন গ্রহের এলিয়ান স্পেসক্রাফ্ট হতে পারে। 'সার্চ ফর এক্সট্রা টিরেস্ট্রিয়াল ইন্টালিজেন্স' এর গবেষকরা আপাতত একটি উন্নতমানের টেলিস্কোপ নির্মাণে ব্যাস্ত। এই টেলিস্কোপের সাহায্যেই তাঁরা খোঁজ চালাবেন , যে এই গ্রাহণুর আকারের বিস্ময়কর বস্তুটি ঠিকো কোন দিক এসেছিল পৃথিবীর কাছাকাছি। ৫ কিমি চওড়া এই গ্রহানুটি মহাকাশে বিভিন্ন বাধার মুখেও পড়ছে। তাতেও এর শক্তি অনেকটাই কমেছে। পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছিল বিশালাকার পাথরখণ্ড। পৃথিবীর ১৬ ভাগের ১ ভাগ মাপের এই পাথর। বিজ্ঞানীদের দাবি, এই মুহুর্তে তা পৃথিবীর বুকে আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কম।১৬ ডিসেম্বর ফাইথন ৩২০০ পৃথিবীর প্রায় চৌষট্টি লক্ষ মাইল দূর দিয়ে যাওয়ার কথা ছিল

পাশাপাশি সূর্যের মাধ্যাকর্ষণেও এই বস্তুটি ধরা দেয় না. এর সূঁচলো মুখ মাহাকাশের গ্য়াসকে কাটিয়ে সহজে বেরোবার জন্য় তৈরি হয়েছে। আপাতত অমুয়ামুয়া সম্পর্কে আরও বেশ কিছু তথ্য সামনে এলে তবেই জানা যাবে এর গোটা বৃত্তান্ত।