পদার্থবিদ্যায় নোবেল পুরস্কার পেলেন তিন বিজ্ঞানী

পদার্থবিদ্যায় নোবেল পুরস্কার পেলেন তিন বিজ্ঞানী

পদার্থবিদ্যায় নোবেল পেলেন কানাডার ডোনা স্ট্রিকল্যান্ড। ৫৫ বছর পরে কোনও মহিলা পদার্থবিদ্যায় নোবেল পেলেন।লেজ়ার প্রযুক্তিতে যুগান্তকারী আবিষ্কারের জন্য পদার্থ বিজ্ঞানে নোবেল পেলেন তিন বিজ্ঞানী। পুরস্কারের মোট অর্থের (৯০ লাখ সুইডিশ ক্রোনা, যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৭ কোটি ৩৪ লাখ টাকা) অর্ধেক পাবেন অ্যামেরিকান পদার্থ বিজ্ঞানী আর্থার আশকিন আর বাকি অর্ধেক পুরস্কার নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নেবেন ফ্রান্সের জেরাদ মরো ও কানাডার ডোনা স্ট্রিকল্যান্ড।

 

নোবেল কমিটি জানাচ্ছে, বিশেষ উদ্ভাবন‘ওপটিক্যাল ট্যুইর্জাস’এর জন্য প্রাইস মানির অর্ধেক জিতে নেন আসকিন৷ মোরোউ ও স্ট্রিকল্যাণ্ড উভয়েই তাদের আবিষ্কারের জন্য প্রাইস মানির এক চতুর্থাংশ করে পান৷ ওন্টারিওর দ্য ইউনির্ভাসিটি অফ ওয়াটারলুর স্ট্রিকল্যাণ্ড পদার্থবিদ্যার উপর তৃতীয় মহিলা নোবেলজয়ী৷ পিএইচড ছাত্রী হিসেবে কাজ করার জন্যই বিশেষ পুরষ্কারে তাঁকে সন্মানিত করা হয়৷ এর আগে ১৯৮৩ সালে নোবেল পেয়েছিলেন মারিয়া জিওপার্ট মেয়ার।

 

মূলত সার্জারি ও বৈজ্ঞানিক গবেষণার ক্ষেত্রে এই লেজ়ার ব্যবহৃত হয়। 'অপটিকাল টুইজ়ার ও জীব ব্যবস্থায় প্রয়োগের' আবিষ্কারের জন্যই মূলত আশকিনকে এই পুরস্কার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এটি একটি বৈজ্ঞানিক উপকরণ। যার মধ্যে থেকে তীব্র আলোর রশ্মি বের হয়।

৫৫ বছর পর পদার্থ বিজ্ঞানে কোনও মহিলা নোবেল পুরস্কার পেলেন। এর আগে ১৯৬৩ সালে মারিয়া জিওপার্ট মায়ের নোবেল পেয়েছিলেন। এই নিয়ে মোট তিনজন মহিলা পদার্থ বিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার পেলেন।