মহরমের তাজিয়া বের করে সম্প্রীতির নজির ওড়িশার এক হিন্দু পরিবারের

মহরমের তাজিয়া বের করে সম্প্রীতির নজির ওড়িশার এক হিন্দু পরিবারের

হিন্দু মুসলিম সম্প্রীতির নজির গড়ল একটি হিন্দু পরিবার। গত ৩৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে মহরমের তাজিয়া বের করছে এক হিন্দু পরিবার। রবিবার ছিল মহরম, এদিনেও একই পরম্পরা বজায় রেখেছিল তাঁরা। জানা গিয়েছে, ১৬৬৪ সাল থেকেই ওড়িশার সম্বলপুরের মুদিপাড়ার বাসিন্দা পাধিয়ারি পরিবারের সদস্যরা মহরম উপলক্ষে ইমাম হোসেনের সমাধির প্রতিকৃতি নিয়ে শোভাযাত্রা করেন। এবারও সেভাবেই বেরিয়েছিল শোভাযাত্রা। কিন্তু হিন্দু পরিবার হয়েও কেন এই রীতি মানা হচ্ছে? 
পাধিয়ারি পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, ১৬৬৪ সালে তাঁদের পূর্বসূরী জয়দেব পাধিয়ারির হাত ধরে এই রীতি চালু হয়েছিল। যিনি বিয়ে না করার জন্য বাড়ি থেকে উধাও হয়ে যান। পালানোর পর মক্কায় গিয়েছিলেন জয়দেব পাধিয়ারি। সেখানেই মুসলিম ধর্মের সংস্কৃতিকে ভাল লেগে যায় তাঁর। কয়েকবছর পর অবশ্য ফিরে আসেন দেশে। এই সময় জয়দীপের সঙ্গে ছিলেন দু'জন মৌলানাও। এরপর সম্বলপুরের রাজা ছত্র সাইয়ের কাছ থেকে মহরমের তাজিয়া বের করার অনুমতি আদায় করেন তিনি। তারপর থেকেই পাধিয়ারি পরিবারে চলে আসছে এই রীতি।
পরিবারের এক সদস্য রাজেন্দ্র পাধিয়ারি এই প্রসঙ্গে বলেন, ' বাপ-ঠাকুরদার মতোই আমরাও প্রতি বছর তাজিয়া নিয়ে শোভাযাত্রায় বেরোই। ' জানা গিয়েছে, কারওর সাহায্য ছাড়াই এই পরিবার প্রতি বছর তাজিয়া বের করে। যে অনুষ্ঠানে শামিল হন এলাকার বাসিন্দারাও।