মহিলার মাতৃত্ব ’ পরীক্ষা ’ করা হলো বিমানবন্দরে

মহিলার মাতৃত্ব ’ পরীক্ষা ’ করা হলো বিমানবন্দরে

ভারতীয় বংশোদ্ভুত এক মহিলাকে ফ্র‌্যাঙ্কফুট বিমানবন্দরে তল্লাশির নামে অপমান করলো জার্মান পুলিশ। বিষয়টির সূত্রপাত হয় ওই মহিলার ব্যাগে থাকা একটি ব্রেস্ট পাম্প পুলিশের নজরে আসার পর। ওই মহিলা এখন সিঙ্গাপুরে থাকেন। ব্রেস্ট পাম্পটি দেখার পর পুলিশ তাঁকে তাঁর মাতৃত্ব প্রমান করতে বলে। ওই মহিলাকে তাঁর স্তনে দুধ আছে কিনা তা প্রমাণ করবার জন্য বলে। এই ঘটনায় অত্যন্ত মর্মাহত ওই মহিলা খুব শীঘ্রই এই ঘটনার বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেবেন। 
৩৩ বছরের গায়ত্রী বোস তিন বছর এবং সাত মাসের দুই শিশুর মা। তিনি ইতিমধ্যেই এই ঘটনার অভিযোগ দায়ের করেছেন। গায়ত্রীদেবী জানান, ' ৪৫ মিনিট ধরে এই লজ্জাজনক ঘটনা চলে। আমার মাতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে আমায় অপদস্থ করা হল, সত্যিই খুবই বেদনাদায়ক। ' ফ্যাঙ্কফুট বিমানবন্দরে শিশু ছাড়া ‌ব্রেস্ট পাম্প নিয়ে যাওয়ার জন্য গায়ত্রী বোসকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেন। জার্মান পুলিসের তরফ থেকে এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে জানানো হয়েছে, প্রতিদিনকার তল্লাশি ছাড়া এটা আর কিছুই নয়। 
গত সপ্তাহে প্যারিস থেকে একা ফেরার সময় গায়ত্রী দেবীকে বিমানবন্দরের পুলিশ আটকায়। তিনি বলেন, ' ‌বিমানবন্দরে এক্স–রে মেশিনে আমার ব্যাগে থাকা ব্রেস্ট পাম্প নজরে পড়ে পুলিসের। আমায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আলাদা করে নিয়ে যাওয়া হয়। অবিশ্বাস্যভাবে তাঁরা আমায় জিজ্ঞাসা করেন, ' আপনি স্তন্যপান করান?‌ তাহলে আপনার সন্তান কোথায় ? ‌তারা কি সিঙ্গাপুরে ? পুলিস আধিকারিক কিছুতেই বিশ্বাস করছিলেন না যে ওই যন্ত্রটা ব্রেস্ট পাম্প। ' পুলিস গায়ত্রী দেবীর পাসপোর্ট নিয়ে তাঁকে মহিলা পুলিশের সঙ্গে অন্য ঘরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য যেতে বলেন। গায়ত্রীদেবী বলেন, ' ‌ঘরের ভেতরে মহিলা পুলিস আমার ব্লাউস খুলে স্তন দেখাতে বলেন এবং আমার স্তনে অন্য কিছু রয়েছে কিনা তা দেখাতে বলেন। এই ঘটনায় আমি হতচকিত হয়ে যাই। আমি বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না আমার সঙ্গে কি ঘটছে। আমি ঘরের বাইরে এসে পুরো বিষয়টা যখন বুঝতে পারি তখন নিজেকে খুবই অসহায় লাগছিল। আমি কেঁদে ফেলি। ' এই ঘটনার পর ব্রেস্ট পাম্প ও পাসপোর্ট ফেরত দেওয়া হয় গায়ত্রী বোসকে। তিনি প্যারিসের উদ্দেশ্যে রওনা দেন। 
ফ্যাঙ্কফুট বিমানবন্দরের দায়িত্বে থাকা জার্মান ফেডারেল পুলিসের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ' ডাটা সুরক্ষার জন্যই এই তল্লাশি। কোনও বিস্ফোরক রয়েছে কিনা ব্যাগে তা দেখার জন্য ব্যাগ তল্লাশি করতেই হয়। আপনি যে একজন মা, স্তন্যপান করান তা স্পষ্ট করে কোথাও উল্লেখ নেই। '