ভারতীয় বলে দত্তক নিতে পারবেন না শ্বেতাঙ্গ শিশু

ভারতীয় বলে দত্তক নিতে পারবেন না শ্বেতাঙ্গ শিশু

শিশু দত্তক নিতে চেয়েছিলেন এক ব্রিটিশ-শিখ দম্পতি। সেইমত আবেদনও করেছিলেন কিন্তু দত্তক সংস্থার তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, সেখান থেকে কোনও শিশুকেই দত্তক নিতে পারবেন না তাঁরা। কারণ জন্মগত ভাবে ওই দম্পতি ব্রিটিশ হলেও বংশগত ভাবে তাঁরা ভারতীয়। ফলে ওই সংস্থার সাদা চামড়ার শিশুদের কাউকেই দত্তক নিতে পারবেন না ওই দম্পতি। শুধু তা-ই নয়, ওই দম্পতিকে ভারত থেকে শিশু দত্তক নেওয়ার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে ওই সংস্থাটির বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যেই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন ওই দম্পতি। মঙ্গলবার লন্ডনের একটি সংবাদমাধ্যমে এই ঘটনা প্রকাশ হওয়ার পরেই চাপে পড়ে ওই দত্তক সংস্থাটি।
বিষয়টি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই লড়ছেন বার্কশায়রের বাসিন্দা সন্দীপ ও রিনা ম্যান্ডার। সূত্রের খবর, শারীরিক অক্ষমতার কারণে সন্তানের জন্ম দিতে পারেননি রিনা। বহু চিকিৎসা, ১৬ বার আইভিএফ পদ্ধতি— সব বিফলে যাওয়ায় অবশেষে শিশু দত্তক নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। সন্দীপ জানান, জাতিগত বৈষম্য না মেনে যে কোনও শিশুকে দত্তক নিতে তাঁরা ইচ্ছুক বলে আবেদন দিয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু সংস্থাটি সেই শর্তে মত দেয়নি বলে অভিযোগ। তাঁদের জানিয়ে দেওয়া হয়, ওই দত্তক সংস্থায় খালি শ্বেতাঙ্গ শিশুই রয়েছে। ফলে দত্তকের বেলায় শ্বেতাঙ্গ ব্রিটিশ এবং ইউরোপীয় দম্পতিদেরই অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।
দম্পতি জানান, ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা মেইডেনহেডের এমপি থাকাকালীন টেরেসা মে এ বিষয়ে তাঁদের অনেক সাহায্য করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরেও শিশু বিষয়ক মন্ত্রীর সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলেন তিনি। ওই মন্ত্রীই তাঁদের আইনি পদক্ষেপ করতে পরামর্শ দেন।