স্ত্রীর ওপর শারীরিক নির্যাতনের জন্য মাত্র এক মাসের সাজা পেলেন স্বামী

স্ত্রীর ওপর শারীরিক নির্যাতনের জন্য মাত্র এক মাসের সাজা পেলেন স্বামী

ভারতীয় বংশোদ্ভূত এক ব্যক্তি তার স্ত্রীর ওপর নির্যাতনের ফল হিসেবে খুব কম শাস্তি পেলেন। সিলিকন ভ্যালির উচ্চপদস্থ আধিকারিক ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক অভিষেক গাট্টানি। ৩৮ বছর বয়সী অভিষেকের বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছেন তাঁর স্ত্রী নেহা রাস্তোগি। অ্যাপল–এ কর্মরত নেহার দাবি গত ১০ বছর ধরে তাঁর ওপর শারীরিক নির্যাতন চালিয়ে আসছে অভিষেক। গত বছর ১৭ মে তাঁদের দু'‌বছরের কন্যার সামনেই তাঁকে মারধর করতে শুরু করেন অভিষেক। চলতে থাকে গালি গালাজ। বুদ্ধি করে নিজের ফোনে গোটা ব্যাপারটি রেকর্ড করেন নেহা। পরে সেটি পুলিশের কাছে নিয়ে যান। অভিষেকের বিরুদ্ধে পারিবারিক হিংসার অভিযোগ দায়েরের পাশাপাশি বিবাহ বিচ্ছেদের জন্যও আবেদন করেন নেহা। 
গত বৃহস্পতিবার আদালতে শুনানি চলাকালীন তিনি বলেন, ' ‌আমার ওপর যেভাবে শারীরিক নির্যাতন চালানো হয়েছে তা সন্ত্রাসের সমান। সব সময় ভয়ে কুঁকড়ে থাকতাম। দিনের পর দিন অসম্ভব যন্ত্রণায় ভুগেছি। অপমান ও শারীরিক নির্যাতন সহ্য করেছি। মেয়ে এবং নিজের নিরাপত্তার কথা ভেবে আতঙ্কে সারাক্ষণ আতঙ্কে ভুগতাম। '‌ মার্কিন মুলুকে পারিবারিক হিংসার সাজা গুরুতর। কিন্তু স্ত্রীর অভিযোগকে চ্যালেঞ্জ না জানানোয়, মাত্র এক মাসের সাজা হয়েছে অভিষেকের। তারপর ছাড়া পেয়ে সপ্তাহান্তে জেল কর্তৃপক্ষকে দিনে আট ঘণ্টার কায়িক শ্রম দেওয়া ছাড়া আর কোনও দায় থাকবে না তার। এর আগে ২০১৩ সালেও অভিষেকের বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছিলেন নেহা।