আমেরিকায় খুন ভারতীয়–মার্কিন দম্পতি

আমেরিকায় খুন ভারতীয়–মার্কিন দম্পতি

আবারও এক ভারতীয়কে হত্যা করা হলো। ঘটনাটি ঘটেছে আমেরিকায়। ভারতীয় বংশোদ্ভূত, পেশায় ইঞ্জিনিয়ার নরেন প্রভু এবং তাঁর স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। যার বিরুদ্ধে এই খুনের অভিযোগ সেই মিরজা তাতলিকও আত্মঘাতী হয়েছেন বলে খবর। পুলিশ সূত্রে খবর, নিজের সান হোসের অ্যাপার্টমেন্টেই হত্যা করা হয় নরেন এবং তাঁর আমেরিকান স্ত্রীকে। তাঁর ১৩ বছরের ছেলের অবশ্য কোনও ক্ষতি করেনি আত্মঘাতী যুবক। 
নরেনের প্রথম পক্ষের মেয়ের প্রাক্তন প্রেমিকই এই কাণ্ড করেছে। পুলিশকে এই কথা জানিয়েছেন নরেনের বড় ছেলে। তিনিই পুলিশকে খবর দেন। যদিও ঘটনার সময় অভিযুক্তর প্রাক্তন প্রেমিকা বাড়িতে ছিলেন না। তিনি  আমেরিকার অন্য প্রান্তে থাকেন। 
জানা গিয়েছে, ঘটনার দিন মিরজা তাতলিক হাজির হন লরা ভ্যালি লেনে নরেনের বাড়িতে। ওই সময় নরেন, তাঁর স্ত্রী ছাড়াও ছোট ছেলে বাড়িতে উপস্থিত ছিল। মিরজা এসেই তাঁর প্রাক্তন প্রেমিকের খোঁজ করতে থাকেন। কিন্তু তাঁকে দেখতে না পেয়ে প্রেমিকার মা–বাবার সঙ্গে উত্তপ্ত বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে যান। নরেনের বড় ছেলে তখন বাড়িতে ছিলেন না। তিনি বাড়িতে ঢোকার মুখেই দেখতে পান, ঘরের ভিতর কী চলছে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি থানায় চলে আসেন। একেবারে পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে নিজেদের অ্যাপার্টমেন্টে হাজির হন তিনি। পুলিশ এসে অ্যাপার্টমেন্টের বাইরে নরেনকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে। ভিতরে তখন অভিযুক্ত মিরজা ছাড়াও নরেনের স্ত্রী ও ছোট ছেলে উপস্থিত ছিল। পুলিস অভিযুক্তকে আত্মসমর্পণ করতে বললেও তা মিরজা শোনেননি। নরেনের স্ত্রীকে মারার পরে নিজেকেও গুলি করে সে। পুলিশ ঘর খুলে ছোট ছেলেকে অক্ষত অবস্থায় দেখতে পায়। অভিযুক্ত মিরজার বিরুদ্ধে অতীতেও পারিবারিক হিংসার অভিযোগ ছিল। মৃতদেহগুলি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।। ‌‌