ক্ষমতাচ্যুত তোগাড়িয়া, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নতুন কার্যকরী সভাপতি বিষ্ণু সদাশিব কোকজে

ক্ষমতাচ্যুত তোগাড়িয়া, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নতুন কার্যকরী সভাপতি বিষ্ণু সদাশিব কোকজে

বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সভাপতির পদ থেকে অপসারিত হলেন প্রবীণ তোগাড়িয়া। তার বদলে কার্যকরী সভাপতির পদে আসীন হলেন বিষ্ণু সদাশিব কোকজে। এই প্রসঙ্গে তোগাড়িয়া বলেন, তাঁকে সরানোর পথ প্রস্তুত করাই ছিল। নির্বাচন নাকি প্রহসন ছিল। শনিবার প্রথমবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় সংঘ পরিবারের পরিষদে। আর তাতেই ক্ষমতাচ্যূত হয়েছেন তোগাড়িয়া। 

উল্লেখযোগ্যভাবে, তোগাড়িয়া ঘনিষ্ঠ রাঘব রেড্ডি কার্যকরী সভাপতি পদে প্রার্থী ছিলেন। তিনি নির্বাচনে হেরে যাওয়ায় গদি হারালেন তোগাড়িয়া। প্রায় ৭ বছর শীর্ষপদে থাকার পর ক্ষমতাচ্যুত হলেন তিনি। তাঁর জায়গায় এলেন বিষ্ণু সদাশিব কোকজে। হিমাচল প্রদেশের প্রাক্তন রাজ্যপাল এখন থেকে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নয়া কার্যকরী সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নিলেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই নির্বাচন ঘিরে বেশ কিছু অভিযোগ সামনে এনে জাতীয় রাজনীতির দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিলেন তোগাড়িয়া। তাঁর অভিযোগ ছিল, তাঁকে পদ থেকে সরানোর একটা অপচেষ্টা চলছে। বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব তাঁকে যেনতেন প্রকারেণ কার্যকরী সভাপতির পদ থেকে সরানোর জন্য উঠেপড়ে লেগেছে বলে অভিযোগ চ হ্হিলো তাঁর। 

আজ, শনিবার গুরুগ্রামে এই নির্বাচন সম্পন্ন হয়। উল্লেখ্য, এটাই ভিএইচপির প্রথম নির্বাচন। আর সেই নির্বাচনে বিপুল ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বী রাঘব রেড্ডিকে হারিয়ে দেন কোকজে। কোকজে পেয়েছেন ১৩১টি ভোট। সেখানে তোগাড়িয়া ঘনিষ্ঠ রেড্ডি মাত্র ৬০টি ভোট পেয়েছেন। উল্লেখ্য, পরিষদের রাষ্ট্রীয় কার্যকারিনী সমিতির ১৯২ জন সদস্য ভোট দেন। এদিন প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানায় পরিষদ। এও জানিয়েছে, তোগাড়িয়ার সঙ্গে পরিষদের আর কোনও সম্পর্ক থাকছে না।

কিন্তু এই ঘটনার পর অবশ্যই চুপ থাকবেন না তোগাড়িয়া। গদি হারিয়ে যথারীতি ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন তিনি। বলেন, হিন্দুদের কণ্ঠকে এভাবে দাবিয়ে রাখা যাবে না। সংসদে রাম মন্দির নিয়ে সওয়াল হোক, এটাই তিনি চান। হিন্দুদের জন্য আগেও লড়েছেন ভবিষ্যতেও লড়বেন বলে হুংকার দিয়েছেন তোগাড়িয়া। এদিকে কোকজে ক্ষমতায় আসায় পরিষদের নীতিতে অনেকে পরিবর্তন আসবে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।