৪০০ অনুগামীর নির্বীজকরণ করেছেন রাম রহিম

৪০০ অনুগামীর নির্বীজকরণ করেছেন রাম রহিম

ধর্ষণের দায়ে ২০ বছরের সাজা খাটছেন ধর্ষক 'বাবা' গুরমিত রাম রহিম। সিবিআই তাঁকে জেরা করে জানতে পেরেছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। ডেরায় প্রায় ৪০০ অনুগামীর নির্বীজকরণ নিয়ে তার বয়ান রেকর্ড করল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। রাম রহিমের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ দায়ের করেছিলেন হংসরাজ চৌহান। তাঁর অভিযোগ, ডেরায় প্রায় প্রত্যেক পুরুষ অনুগামীর নির্বীজকরণ করা হয়। রাম রহিমের সাফাই ছিল, নাসবন্দির মাধ্যমেই ঈশ্বরকে পাওয়া যায়। এই বলেই পুরুষ শিষ্যদের এই কাজে বাধ্য করা হত। নেপথ্যের কারণ অবশ্য অন্য। ডেরার ভিতর যেভাবে যৌনচার চলত তার একচ্ছত্র অধিপতি ছিল রাম রহিম। সাধ্বী থেকে শুরু করে অন্যান্য মহিলাদের ভোগের অধিকার ছিল একমাত্র তারই। আর তাই বাকি সমস্ত পুরুষদের পৌরুষত্ব হরণ করে নেওয়া হত। এই অভিযোগ ওঠার পরই আদালত বাবার বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেয়। এবার তা নিয়েই টানা জিজ্ঞাসাবাদ করে রাম রহিমের বয়ান রেকর্ড করল সিবিআই। সূত্রের খবর, এই পরিস্থিতিতেও নির্বীজকরণের অভিযোগ অস্বীকার করে চলেছে ধর্ষক বাবা।
এদিকে বাবা রাম রহিমকে নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ তার দত্তক কন্যা হানিপ্রীতও। গোপন ডেরায় নিয়ে গিয়ে তাকে টানা জেরা করছে পুলিশ। জেরার মুখে খানিকটা ভেঙেও পড়েছে হানিপ্রীত।