যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে চীনের আকাশসীমায় ড্রোন, অনুপ্রবেশের অভিযোগ খারিজ করলো ভারত

যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে চীনের আকাশসীমায় ড্রোন, অনুপ্রবেশের অভিযোগ খারিজ করলো ভারত

চীনের আকাশ সীমান্তে ঢুকে পরেছিল ভারতের একটি ড্রোন। সীমান্তে নজরদারিতে ব্যবহৃত ভারতের ওই ড্রোন যে চিনের আকাশসীমায় ঢুকে পড়েছিল, তা স্বীকার করে নিল প্রতিরক্ষামন্ত্রক। প্রতিরক্ষামন্ত্রকের তরফে এক বিবৃতি বলা হয়েছে, সিকিমে চীন সীমান্তের কাছে ওই ড্রোনটি প্রশিক্ষণের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছিল। কিন্তু, যান্ত্রিক ক্রুটির কারণে ড্রোনটিকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি এবং সেটি নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে চীনের আকাশসীমায় ঢুকে পড়ে। বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে চীনকে জানানো হয়। কেন এমনটা ঘটল, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। কি চীন এই ঘটনায় অনুপ্রবেশের অভিযোগ তুলছে।
অরুণাচল প্রদেশ বা লাদাখ-সহ সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় চীনা সেনা অনুপ্রবেশের ঘটনা নতুন নয়। কিন্তু, এবার ভারতের বিরুদ্ধে পালটা আকাশসীমায় অনুপ্রবেশের অভিযোগ তুলেছে চিন। বেজিংয়ের দাবি, নজরদারির কাজে ব্যবহার করা হয়, এমন একটি ভারতীয় ড্রোন নাকি চীনের আকাশসীমায় অনুপ্রবেশ করেছে এবং অনুপ্রবেশের পর সেটি ধ্বংস হয়ে গিয়েছে। বেজিংয়ে এক প্রশাসনিক কর্তাকে উদ্ধৃত করে চীনা সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বিদেশি ডিভাইসটির প্রতি পেশাগত কর্তব্য পালন করেছে লালফৌজ। যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ঠিক কী কারণে চিনের আকাশসীমায় প্রবেশ করানো হয়েছিল, তা খতিয়ে দেখার জন্য ড্রোনটিকে পরীক্ষা করা দেখা হচ্ছে। এই ঘটনায় ভারতের ভূমিকা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে চীন। 
বেজিংয়ের বক্তব্য, এটা প্রতিবেশীসুলভ আচরণ নয়। প্রাথমিকভাবে এই ঘটনায় নীরবই ছিল নয়াদিল্লি। শেষপর্যন্ত বৃহস্পতিবার দুপুরে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে প্রতিরক্ষামন্ত্রক। অনুপ্রবেশের অভিযোগ খারিজ করে দিলেও, ভারতীয় ড্রোনের চীনের আকাশসীমায় ঢুকে পড়ার কথা স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে। প্রতিরক্ষামন্ত্রকের ব্যাখ্যা, সিকিমে চীন সীমান্তের কাছে রুটিন প্রশিক্ষণের কাজে ড্রোনটি ব্যবহার করা হচ্ছিল। কিন্তু আমচকাই যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়ায়, ড্রোনটিকে আর নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়নি।