২০১৯-এ ক্ষমতায় এলে ভারতকে ‘হিন্দু পাকিস্তান’ তৈরি করবে বিজেপি: শশী থারুর

২০১৯-এ ক্ষমতায় এলে ভারতকে ‘হিন্দু পাকিস্তান’ তৈরি করবে বিজেপি: শশী থারুর

২০১৯-এ ফের ক্ষমতায় এলে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার ভারতকে 'হিন্দু পাকিস্তান' তৈরি করবে। তিরুবনন্তপুরমে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে এই মন্তব্য করেন কংগ্রেস নেতা শশী থারুর।

তাঁর মতে, 'যেভাবে ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র গড়ার দিকে এগোচ্ছে বিজেপি তাতে আগামী লোকসভা নির্বাচনে জিতে আসলে তারা নিজেদের সর্বেসর্বা মনে করবে। গণতান্ত্রিক দেশের সংবিধান বলতে আমরা যা বুঝি, তা হয়তো আর বেঁচে থাকবে না। নিজেদের সুবিধামতো  দেশের সংবিধানেও পরিবর্তন আনবে বিজেপি। সেই বিকৃত সংবিধানের উদ্দেশ্যই হবে ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র তৈরি করা। একই সঙ্গে সংখ্যালঘুদের সমানাধিকার থাকবে না। এই নয়া সংবিধান ভারতকে 'হিন্দু পাকিস্তান'-এ পরিণত করবে। সেখানে কোথাও থাকবে না মহত্মা গান্ধী, জওহরলাল নেহরু, সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল, মৌলানা আবুল কালাম আজাদের মতো স্বাধীনতা সংগ্রামীদের বীরগাথা।'

তিরুবনন্তপুরমে হওয়া ওই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেও কটাক্ষ করেন শশী থারুর। তিনি বলেন, 'নির্বাচনের আগেভাগেই কংগ্রেসকে লাগাতার দোষারোপ করে চাপে রাখতে চাইছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেজন্য একের পর এক মিথ্যে প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাচ্ছেন তিনি।'

এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপিও চুপ নেই। বিজেপির মুখপাত্র সম্বিত পাত্র পালটা তোপ দেগেছেন। তাঁর দাবি, ‘শশী থারুরের এহেন লাগামছাড়া বক্তব্যের জন্য কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে। পাকিস্তান তৈরির দায় কংগ্রেসকেই নিতে হবে। কংগ্রেসের উচ্চাকাঙ্ক্ষার পরিণতি পাকিস্তান। ফের নতুন করে বিশ্বের দরবারে ভারতকে নিচু দেখানোর পাশাপাশি দেশের হিন্দুদের সম্মানহানি করার দিকে এগোচ্ছে কংগ্রেস।'