সমকামিতা সম্পর্কিত ৩৭৭ ধারা নিয়ে কেন্দ্রের কোনো মতামত নেই, সুপ্রিম কোর্টে জানালো কেন্দ্র

সমকামিতা সম্পর্কিত ৩৭৭ ধারা নিয়ে কেন্দ্রের কোনো মতামত নেই, সুপ্রিম কোর্টে জানালো কেন্দ্র

সমকামিতা নিয়ে মামলার শুনানিতে গতকাল সর্বোচ্চ আদালত জানিয়েছিল ৩৭৭ ধারা পুনর্বিবেচনা করা হবে। এদিন এই বিষয়ে একটি বড় সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্র এই বিষয়ে নিজের অবস্থানে বদল আনলো। বলা হয়েছে, ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারার সাংবিধানিক বৈধতা রয়েছে কি না, তা নির্ধারণ করুক সর্বোচ্চ আদালত। এ বিষয়ে সরকারের নিজের কোনও অবস্থান নেই বলে হলফনামা দিয়ে জানালেন অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল তুষার মেটা। উল্লেখ্য, এর আগে কেন্দ্রীয় সরকার ৩৭৭ ধারা বহাল রাখার পক্ষেই সুপ্রিম কোর্টে সওয়াল করেছিল।

প্রসঙ্গত, ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা অনুযায়ী সমকামিতা দণ্ডনীয় অপরাধ। এতে সর্বোচ্চ ১০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। এলজিবিটি কমিউনিটির তরফে এই আইনকে দিল্লি হাইকোর্টে চ্যালেঞ্জ জানানো হয়েছিল। দিল্লি হাইকোর্ট ৩৭৭ ধারাকে অসাংবিধানিক আখ্যা দেয় এবং জানিয়ে দেয়, সমকামিতা কোনও অপরাধ নয়। কিন্তু তারপর ২০১৩ সালে সর্বোচ্চ আদালত দিল্লি হাইকোর্টের রায়কে খারিজ করা হয়।

সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের বিরোধিতায় পথে নামেন অনেকে। এলজিবিটি কমিউনিটি এবং বেশ কিছু মানবাধিকার সংগঠন এর প্রতিবাদে নামে। রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে একগুচ্ছ আবেদনও জমা পড়ে। সেই আবেদনগুলির প্রেক্ষিতেই সুপ্রিম কোর্ট সিদ্ধান্ত নেয় যে, নতুন করে নিজের রায়ই খতিয়ে দেখবে সর্বোচ্চ আদালত। গতকাল মঙ্গলবার ছিল সেই মামলার প্রথম দিন।

তবে আজ বুধবার কেন্দ্র হলফনামা পেশ করে জানিয়ে দিল, ৩৭৭ ধারা বৈধ নাকি অবৈধ- এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিক সর্বোচ্চ আদালত। সরকারের এই বিষয়ে কোনো মতামত নেই।