কাশ্মীরে মৃত জঙ্গিদের ‘শহিদ’ বলে সম্বোধন, বিতর্কে মেহবুবার দলের বিধায়ক

কাশ্মীরে মৃত জঙ্গিদের ‘শহিদ’ বলে সম্বোধন, বিতর্কে মেহবুবার দলের বিধায়ক

নিরাপত্তারক্ষা বাহিনীর হাতে মৃত কাশ্মীরি জঙ্গিরা শহিদ। তাই তাদের মৃত্যুতে আনন্দ করা উচিত নয়। এমনটাই বললেন কাশ্মীরের ওয়াচির পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টি বা পিডিপি-র বিধায়ক আইজাজ আহমেদ মীর। সোপিয়ান জেলার ওয়াচির বিধায়কের এহেন বক্তব্যের পরই শুরু হয়েছে বিতর্ক। কাশ্মীরে সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে মৃত জঙ্গিরা কি শহিদ? বৃহস্পতিবার বিধানসভার বাইরে এই প্রশ্নের উত্তরে বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেন মীর। আর তার রেশ আছড়ে পড়ে জম্মু-কাশ্মীরের বিধানসভাতেও।
এর আগে বুধবারও একইরকম বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন মীর। কাশ্মীরে জঙ্গিদের মৃত্যুতে বিধায়কদের আনন্দ করতে বারণ করেছিলেন তিনি। বলেছিলেন, ওই জঙ্গিরা আমাদের ভাই। জম্মু-কাশ্মীরের সরকারের উচিত জঙ্গি সংগঠন এবং বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে আলোচনায় বসে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করা। এরপর বৃহস্পতিবার বিধানসভায় প্রবেশের সময় তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, আপনি কী মনে করেন কাশ্মীরে মৃত জঙ্গিদেরও শহিদের মর্যাদা পাওয়া উচিত? 
এর উত্তরে মীর বলেন, ' যারা কাশ্মীরের বাসিন্দা, তারা যেভাবেই মরুক না কেন শহিদের মর্যাদা পাওয়া তাদের অধিকার। ' এরপো তাঁর সংযোজন, ' কোনও জঙ্গি মারা গেলে আমাদের উদযাপন করা উচিত নয়। এটা আমাদের সবার দোষ। কোনও জওয়ান শহিদ হলে আমরা যেমন তার পরিবারের প্রতি সহানুভূতি দেখাই, তেমনই ওই জঙ্গির পরিবারের প্রতিও আমাদের সহানুভূতিশীল হওয়া উচিত। ' 
এর পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপির সাংসদ এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভি সংবাদসংস্থা এএনআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ' জঙ্গি এবং বিচ্ছিন্নতাবাদীরা কাশ্মীরের, কাশ্মীরিদের শত্রু। তারা উন্নয়ন ও শান্তি কখনওই চায় না। তারা কি করে কারওর ভাই হতে পারে। ' অপর এক বিজেপি বিধায়ক সুনীল শর্মা বলেন, কেউ মৃত জঙ্গিকে 'শহিদ' বলতে পারে না। কোনও বিধায়ক যদি এ ধরনের মন্তব্য করে থাকেন, তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত করা হবে।