ফুসফুস দুর্বল হলে এড়িয়ে যাবেন না, জেনে নিন কি করণীয়

ফুসফুস দুর্বল হলে এড়িয়ে যাবেন না, জেনে নিন কি করণীয়

ফুসফুসের মাধ্যমে আমাদের শরীরে অক্সিজেন ঢোকে ও কার্বন-ডাই-অক্সাইড নির্গত হয়। ফুসফুসের দুর্বল হয়ে যেতে পারে বেশ কিছু কারণে। যেমন- ফুসফুসকে ধরে রেখেছে যে পেশি, কলা দিয়ে তৈরি খাঁচা— সেগুলির সমস্যার কারণেও ফুসফুসের জোর হ্রাস পায়। এছাড়া মেনিনজাইটিসের মতো সংক্রমণে, গুলেনবারি সিনড্রোমের মতো অটো ইমিউন রোগে, এমনকি পোলিওর কারণে ফুসফুসের পাশে থাকা বিভিন্ন পেশির সমস্যা হয়। এছাড়াও, ফুসফুসের নিজস্ব কিছু অসুখ যেমন—অ্যাজমা, ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ (সিওপিডি)-এর মতো শ্বাসনালীর রোগ। সিওপিডি এর কারণে ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বহুগুণে কমে যায়। 

ফুসফুস দুর্বল হলে বুঝবেন কিভাবে?  
রোগী বড় দ্রুত ক্লান্ত হয়ে যান। একটু হাঁটাচলা করলেই রোগী হাঁপিয়ে পড়েন। কাশি হয়। ঘন ঘন সংক্রমণে বুকে কফ জমে। ঋতু বদলের সময় পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারেন না। শ্বাস নেওয়ার সময় বুকে আওয়াজ হওয়া ইত্যাদি। 
অন্যদিকে শহরে মাত্রাতিরিক্ত দূষণে নাগরিকেরও ফুসফুসের অসুখ হওয়ার আশঙ্কা থাকে। উল্লেখ্য, মহিলাদের ফুসফুসের রোগ হওয়ার আশঙ্কা বেশি। কারণ মহিলাদের ফুসফুসের আকার পুরুষের তুলনায় কম। তাই মহিলারা ধূমপান করলে তার কুপ্রভাব পুরুষের চাইতে বেশি।

ফুসফুসের জোর বাড়াতে কী করতে হবে? 
* সুষম খাদ্য গ্রহণ করুন। অর্থাৎ আপনার রোজকার খাবারে যেন শর্করা, প্রোটিন, ফ্যাট, ভিটামিন-এর সবকটিই থাকে। 
* ধুমপান বন্ধ করুন। 
* রোজ কিছু এক্সারসাইজ করা দরকার। শরীরচর্চায় ফুসফুসের ক্ষমতা বাড়ে। কারণ এক্সারসাইজ করার সময় ফুসফুসে বেশি পরিমাণ বাতাস ঢোকে। 
* নিয়মিত যোগাসন বা প্রাণায়াম করলে ফুসফুসের অক্সিজেন নেওয়া এবং কার্বোন ডাই অক্সাইড ছাড়ার ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।