টোটোয় ধাক্কায় গুরুতর জখম শিশু, ৪টি হাসপাতাল ঘুরে বিনা চিকিত্সায় মৃত্যু

টোটোয় ধাক্কায় গুরুতর জখম শিশু, ৪টি হাসপাতাল ঘুরে বিনা চিকিত্সায় মৃত্যু

টোটোর ধাক্কায় গুরুতর জখম হয় একটি শিশু। তড়িঘড়ি তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন পরিবারের লোকেরা। কিন্তু, পরিকাঠামো না থাকার কারণ দেখিয়ে ফিরিয়ে দিল তিন-তিনটি হাসপাতাল! যার জেরে শেষপর্যন্ত কলকাতার এনআরএস হাসপাতালে কার্যত বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হল বছর ছয়েকের একতা শর্মার।
ঘটনাটি কী ঘটেছিল? 
বুধবার হাওড়ার বেলুড়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে ছয় বছরের একতা শর্মা। একটি টোটো ধাক্কা মারে তাকে। রাস্তায় ছিটকে পড়ে একতা। পাঁজরের তিন-চারটি হাড় ভেঙে যায়। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, গুরুতর জখম একতাকে প্রথমে হাওড়ার জয়সোয়াল হাসপাতালে নিয়ে যান তাঁরা। কিন্তু, পরিকাঠামোর দোহাই দিয়ে শিশুটির প্রাথমিক চিকিৎসা পর্যন্ত করেননি হাসপাতালে চিকিৎসকরা। তড়িঘড়ি শিশুটিকে রেফার করা দেওয়া হয় হাওড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে। পরিবারের লোকেদের অভিযোগ, সেখানে কোনও চিকিৎসা হয়নি। সেখানকার চিকিৎসকদের পরামর্শে এবার শিশুটিকে নিয়ে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে ও হাসপাতালে যান পরিবারের লোকেরা। কিন্তু, সেখানে একই ছবি। শিশুটির এক আত্মীয় জানিয়েছেন, মেডিক্যাল কলেজের এক চিকিৎসক বলেন, শিশুটির হাড় জোড়া লাগানো সম্ভব। কিন্তু, হাসপাতালের বেহাল পরিকাঠামোর কারণে ঝুঁকি নেওয়া যাবে না। তাই শিশুটিকে এনআরএস হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।
পরিবারের লোকেদের দাবি, বুধবার গভীর সন্ধ্যায় যখন একতা শর্মাকে এনআরএস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়, তখন তার শারীরিক অবস্থা এতটাই খারাপ যে চিকিৎসার আর কোনও সুযোগই পাওয়া যায়নি। বুকের এক্স-রে করাতে নিয়ে যাওয়ার পথেই মারা যায় সে।