হুমকি শেষে শ্যুটিং সেটে সলমনকে খুন করতে দুষ্কৃতিরা

হুমকি শেষে শ্যুটিং সেটে সলমনকে খুন করতে দুষ্কৃতিরা

আগের দিন খুনের হুমকি। পরের দিন সোজা অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে অভিনেতা সলমান খানকে মারতে শুটিংয়ের সেটে পৌঁছাল দুষ্কৃতীরা। বুধবার ফিল্ম সিটিতে ‘রেস থ্রি’ ছবির শুটিং চলাকালীন এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বি-টাউনে।

গত ১০ বছর ধরে যোধপুর আদালতে কৃষ্ণসার শিকার মামলা চলছে।
গত মঙ্গলবার ফিল্ম সিটিতে সলমনের আগামী সিনেমা রেস ৩-র সেটে পৌঁছয় পুলিশ। পুলিশ সলমন ও প্রযোজক রমেশ তুরানিকে বলে যে, অভিনেতার যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বাড়ি চলে যাওয়া প্রয়োজন। কয়েকদিন তাঁকে চুপচাপ থাকারও পরামর্শ দেওয়া হয়। ছয়জন পুলিশ কর্মী একটি গাড়িতে প্রহরা দিয়ে সলমনকে বাড়িতে পৌঁছে দেন।
গত বৃহস্পতিবার গ্যাংস্টার লরেন্স হুমকি দেয় যে, যোধপুরে সলমনকে খুন করা হবে..তাহলেই তিনি আমাদের প্রকৃত পরিচয় জানতে পারবেন।
লরেন্স কুখ্যাত গ্যাংস্টার। তার বিরুদ্ধে ২০ টিরও বেশি খুনের চেষ্টা, তোলাবাজি, গাড়িচুরি, ছিনতাই ও অস্ত্র আইনে মামলা রয়েছে।
 

 

বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ‘রেস থ্রি’-র সেটে অস্ত্র নিয়ে দুষ্কৃতী ঢুকে পড়লে, সঙ্গে সঙ্গে থানায় খবর দেওয়া হয়। এরপর সাবধানে বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয় সলমনকে। কড়া নিরাপত্তার মোড়কে এরপর শুটিং সেট থেকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয় বলিউডের ‘ভাইজান’-কে।এ বিষয়ে সলমনের বাবা সেলিম খানকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, কী ঘটেছে, সে বিষয়ে সঠিক খবর নেই তাঁর কাছে। তবে এই প্রথম নয়, যখন সলমনকে খুনের হুমকি দেওয়া হল। এর আগেও বেশ কয়েকবার সলমনক খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তাঁর বাবা।

শুধু লরেন্সই নয়, আরও তিনজন সলমানকে খুনের হুমকি দিয়েছে বলে মুম্বই পুলিশ সূত্রে খবর। এমনকী তাঁর আপকামিং ছবির শুটিংয়ের সেটে ভাঙচুরের ছকও কষা হয়েছে।