যৌন হেনস্থার জন্য চরম পদক্ষেপ নিলেন আমির খান

যৌন হেনস্থার জন্য চরম পদক্ষেপ নিলেন আমির খান

আমির খান সরে দাঁড়ালেন এক ছবি প্রযোজনার কাজ থেকে। বললেন, কাজ করতে চান না কোনও অভিযুক্তর সঙ্গে।নিজের টুইটার হ্যান্ডলে আমির লেখেন, 'আমির খান প্রোডাকশন হাউজ়ে আমরা সব সময়ে যৌন হেনস্থা বা অশালীন আচরণের ক্ষেত্রে জ়িরো টলারেন্স পলিসি মেনে চলি। দু'সপ্তাহ আগে  MeToo মুভমেন্টের মধ্যে দিয়ে ভয়ানক ঘটনাগুলো সামনে আসতে থাকে। তখনই আমাদের নজরে আসে যে আমরা একটা ছবির প্রয়োজনে এমন একজন মানুষের সঙ্গে কাজ করতে চলেছি যার নাম উঠে এসেছে এক হেনস্থাকারীর নাম হিসেবে।'এর আগে, টুইটারে সুভাষের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ তোলেন গীতা ত্যাগী। এই অভিযোগ তিনি জানান আমিরের স্ত্রী কিরণের কাছে। তারপর থেকে ফিল্ম থেকে সরে আসেন আমির খান। ছবিতে প্রযোজনার পাশাপাশি আমিরের অভিনয় করার কথা ছিল। তবে অভিনেতা ও প্রযোজক দুটি দিক থেকেই সরে আসেন আমির। উল্লেখ্য, একটি ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যায় গীতা ত্যাগী সুভাষের স্ত্রীয়ের সামনে তাঁর যৌন হেনস্থার কথা ফাঁস করছেন।

হ্যাশট্যাগ মি টু-র ফলে বেশ কয়েকজন মহিলা এমন অভিযোগ সামনে আনেন ৷ আমিরের সঙ্গে কাজ শুরু আগেই বিষয়টি নজরে আসে আমির ও তাঁর স্ত্রী কিরণের ৷ এরপরই এই প্রোজেক্ট থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন তাঁরা 

আপাতত পরিচালকের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের বিষয়টি এখন বিচারাধীন ৷ তাই এই নিয়ে কোন মন্তব্য করতে চাননি আমির বা কিরণ ৷ কিন্তু যেই পরিস্থিতিতে মহিলাদের সম্মান নিয়ে প্রশ্ন উঠছে, সেখানে নিজেকে কোনভাবেই যুক্ত করতে চান না আমির বা তাঁর স্ত্রী ৷ সেই কারণেই এই পদক্ষেপ ৷

অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছিলেন নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে। তারপর থেকেই বলিউডে শুরু হয়েছে MeToo মুভমেন্ট। অনেকেই শেয়ার করছেন তাঁদের ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা।