প্রেসিডেন্সির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ডিলিট পেয়ে গর্বিত সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

প্রেসিডেন্সির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ডিলিট পেয়ে গর্বিত সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের হাতে সাম্মানিক ডিলিট সম্মান তুলে দেওয়া হল প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে। ছাত্র আন্দোলনের জেরে দুশো বছরের প্রথা ভেঙে এবছর নন্দনে সমাবর্তন অনু্ষ্ঠান করছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ,  সেখানেই বর্ষীয়ান অভিনেতার হাতে এই সম্মান তুলে দেন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ অনুরাধা লোহিয়া।

নন্দনে প্রেসিডেন্সির ষষ্ঠ সমাবর্তন অনুষ্ঠানে উপস্থিত নেই বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য৷ এবারের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে

সোমবার সকাল থেকে ছাত্রছাত্রীরা আন্দোলন করে মেইনগেট সহ অন্যান্য গেট বন্ধ করে দেয়৷ উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়া রেজিস্টার দেবজ্যোতি কোনার্ক সহ অন্য আধিকারিকদের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হয়নি৷ সোমবার গভর্নিং বডির বৈঠক ছিল, যেটি করা সম্ভব হয়নি৷ এরপরই মঙ্গলবারের প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ষষ্ঠতম সমাবর্তন অনুষ্ঠান নিয়ে উপাচার্য জানিয়েছিলেন, ‘‘গভর্নিং বডির মিটিং না হওয়ার জন্য ডিগ্রি রেডি করা সম্ভব হয়নি৷ ডিগ্রি রেডি না হলে কাউকে ডিগ্রি দেওয়া যাবে না৷”

একমাস হল হিন্দু হস্টেল ফেরানোর দাবিতে পড়ুয়ারা আন্দোলন করছেন। সোমবার সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢোকার দু’টি গেট আটকে চলে বিক্ষোভ। মঙ্গলবারের অনুষ্ঠান নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে গভর্নিং বডির বৈঠকও ছিল। কিন্তু বিক্ষোভের জেরে বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট থেকেই ফিরে যান উপাচার্য-রেজিস্ট্রার-সহ অধ্যাপকরা। ফলে বাতিল হয়ে যায় বৈঠক। এর পরেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেয়, প্রেসিডেন্সির ক্যাম্পাসে সমাবর্তন হবে না ৷ তার বদলে রাজভবনে হবে প্রতীকী সমাবর্তন ৷ কিন্তু রাজভবনে সমাবর্তন অনুষ্ঠান হওয়ার সিদ্ধান্তের পর শুরু হয় আবার অন্য নাটক।

 

এদিন সমাবর্তন অনুষ্ঠানে পূর্বসূরী শিল্পীদের প্রতি শ্রদ্ধা ঝরে পড়ে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের গলায়। এই সম্মানকে তাঁর উত্তরসূরীদের উদ্দেশেই উত্সর্গ করেন তিনি। বলেন, এই সম্মান তাঁর পূর্বসূরী অভিনেতা-অভিনেত্রীদের লড়াইয়েরই স্বীকৃতি।