এবার দিল্লী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায় সবকটি আসনে জয়ী কংগ্রেস

এবার দিল্লী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায় সবকটি আসনে জয়ী কংগ্রেস

ধোপে টিকলনা এবিভিপির,শুধুমাত্র সম্পাদক, যুগ্ম সম্পাদক পদ ধরে রাখতে পেরেছে এবিভিপি। সভাপতি পদে এবিভিপি-র রজত চৌধুরি, বাম ছাত্র সংগঠন এআইএসএ-র পারুল চৌহা, দুই নির্দল প্রার্থী রাজা চৌধুরি ও অলকাকে পিছনে ফেলে জয়ী হয়েছেন কংগ্রেসের ছাত্র সংগঠনের প্রার্থী রকি তুসিদ। রকি ১৫৯০ ভোটে জিতেছেন। সহ সভাপতি পদে এবিভিপি প্রতিদ্বন্দ্বীকে হারিয়ে জিতেছেন এনএসইউআইয়ের কুনাল শেরাওয়াত।

২০১২ সাল থেকে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে টানা জিতে আসছে এবিভিপি। গতবারও সভাপতি ও সহ-সভাপতি পদ তারাই দখলে রেখেছিল।

এনএসইউআই-র অভিযোগ, এই দুটি পদের ভোটগণনার সময়ে গণনাকেন্দ্রের সিসিটিভি ক্যামেরা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এই দুটি পদের ফলাফলের ওপর স্থগিতাদেশ ও পুনর্গণনার দাবিতে এনএসইউআই দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হতে চলেছে বলে সূত্রের খবর।

মঙ্গলবার দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদ নির্বাচনে ভোট পড়েছিল মোট ৪৩ শতাংশ। সভাপতির পদের মূল প্রতিদ্বন্দ্বি ছিলেন এনএসইউআই-এর রকি তুসীদ ও এবিভিপির রজত চৌধুরী। বুধবার গণনার শেষ হাসি হাসলেন রকিই। দলের ছাত্র সংগঠনের সাফল্য়ের খবর শুনে আমেরিকা সফরে থাকা রাহুল গাঁধী ট্যুইট করে অভিনন্দন জানিয়েছেন। কংগ্রেসের মতাদর্শে আস্থা রাখায় ধন্যবাদ দিয়েছেন দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদেরও।এবিভিপির ঝুলিতে সম্পাদক ও ‌যুগ্ম সম্পাদক। গতবার কানহাইয়া বিতর্কে জেএনইউ-তে মুখ পুড়লেও দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে মুখরক্ষা করেছিল এবিভিপি। এবার নিজেদের গড়েই তারা কোণঠাসা।