এটিএম-এ রয়েছে স্কিমার, বিপাকে হাজার হাজার গ্রাহক

এটিএম-এ রয়েছে স্কিমার, বিপাকে হাজার হাজার গ্রাহক

 কলকাতা পুলিসকে ভাবিয়ে তুলেছে স্কিমিং চক্র। রবিবারই কসবার বকুলতলা মোড়ে একটি এটিএম-এ একটি ডিভাইস খুঁজে পাওয়া গিয়েছে । সেটিকে স্কিমার বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এরমধ্যেই আরও চিন্তার কারণ রয়েছে এটিএম ব্যবহারকারীদের।কসবা বকুলতলা মোড়ের বেসরকারি ব্যাঙ্কের এটিএম। এলাকার ব্যস্ত এটিএমগুলির মধ্যে অন্যতম। রবিবার বিকেলে সেখানেই টাকা তুলতে গিয়েছিলেন, স্থানীয় যুবক সৌম্যব্রত সেন। সেখানেই এটিএম-এর কি প্যাডের ওপরে চোখ যায় তাঁর। সন্দেহজনক মনে হওয়ায় সেটিতে টান দেন। আঠা খুলে বেরিয়ে আসে সেটি। সেখানেই ক্যামেরা লাগানো ছিল বলে দাবি ওই যুবকের। একই সঙ্গে যেখানে কার্ড ইনসার্ট করতে হয়, সেখানে একটি ডিভাইস লাগানো ছিল বলে দাবি ওই যুবকের।

 

প্রাথমিক তদন্তে মনে করা হচ্ছে কানাড়া ব্যাঙ্কের ২৭৫ গ্রাহকদের ডেবিট কার্ডের তথ্য পাচার হয়েছে। এদের মধ্যে ৪২ জন টাকা খুইয়েছেন বলে খবর। সবেমিলিয়ে ওই তিন ব্যাঙ্কের ৬০০ বেশি গ্রাহক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে। সন্দেহ করা হচ্ছে কানাড়া ব্যাঙ্কের এটিএম স্কিমিং করা হয়েছে এপ্রিলে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, দিল্লি থেকে ব্যাঙ্ক প্রতারণা কাণ্ডে ধৃত রোমানিয়ার দুই যুবক ছিল কসবাতেই। ফলে তদন্তের জন্য কলকাতায় আনা দুই রোমানীয় যুবক এই ঘটনায় যুক্ত কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

 

এদিকে, স্কিমিংকাণ্ডে দুই রোমানিয় নাগরিককে জেরা করে মিলেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। তাদের বক্তব্য, জালিয়াতি করে টাকা তোলার জন্য তাদের ১৫-২০ শতাংশ দেওয়া হয়। অর্থাৎ জালিয়াতির পেছনে রয়েছে তৃতীয় কোনও মাথা।