গৃহশিক্ষকের যৌন নির্যাতনে অপমানিত হয়ে আত্মঘাতী ছাত্রী

গৃহশিক্ষকের যৌন নির্যাতনে অপমানিত হয়ে আত্মঘাতী ছাত্রী

স্কুলছাত্রীকে নিয়মিত যৌন নির্যাত চালানোও আত্মহত্যার প্ররোচনা দদেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার  স্কুলশিক্ষক,বৃহস্পতিবার দুপুরে অভিযুক্ত শিক্ষককে বালুরঘাট ঠাকুরপুরা এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে,আগামীকাল তাঁকে বালুরঘাট আদালতে তুলে পুলিশ হেপাজতে নেওয়ার আর্জি জানানো হবে। এর পাশাপাশি গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে বলেও জানান DCP হেড কোয়ার্টার সৌমজিৎ বড়ুয়া।

বালুরঘাট থানার একটি স্কুলে দশম শ্রেনীর ছাত্রী অভিযুক্ত শিক্ষকের কাছে দুবছর ধরে পড়ত,দশম শ্রেনীর ছাত্রীটি হঠাতই গত মাসের শেষের দিকে আত্মহত্যা করে,প্রথমে মৃত্যুর কারণ না জানা গেলেও পরে তাঁর খাতা থেকে একটি চিঠি উদ্ধার হয়। এরপরই মৃত্যুর কারণ নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। ওই চিঠি থেকে জানা যায়, মৃত ছাত্রী গৃহশিক্ষককে ভালোবাসত। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে নাকি ওই ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করতেন অভিযুক্ত গৃহশিক্ষক।

অন্যদিকে সুইসাইড নোট উদ্ধারের পরই উধাও হয়ে যান শিক্ষক,মৃতার বাবা প্রতাপ রায় গুজরাটের শ্রমিক৷ মেয়েকে পড়ানোর জন্য সুজনকে ঠিক করেছিলেন তিনি৷ বেলতারা এলাকায় সুজনের বাড়িতেই পড়তে যেত সে৷ ঘটনার জেরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে৷ সকলেই অভিযুক্তের কঠোর শাস্তির দাবি তুলেছেন৷