চারদিন পর গৃহবধূর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার

চারদিন পর গৃহবধূর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার

স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে খুন স্বামীর। ৪ দিন পর বাড়ির পাশের পুকুর থেকে মিলল গৃহবধূর বস্তাবন্দি দেহ। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বসিরহাটে। স্থানীয় সূত্র অনুযায়ী, সাত বছর আগে কাঁটাপুকুরের বাসিন্দা সত্যজিতের সঙ্গে চম্পার বিয়ে হয়। ওই দম্পতির দুই সন্তান আছে। গত পাঁচ দিন ধরে চম্পাকে পাড়াতে দেখতে পাননি প্রতিবেশীরা। স্ত্রী নিখোঁজ, এই দাবি করে অভিযুক্ত প্রতিবেশীদের জানিয়েছিল। থানায় নিখোঁজ ডায়েরিও করেছিল। অবস্থা বুঝে দুই সন্তানকে সত্যজিৎ আত্মীয়ের বাড়িতে রেখে এসেছিল। আর তাতেই প্রতিবেশীদের সন্দেহ হয়।


আজ সকালে বাড়ির পিছনের একটি পুকুর থেকে উদ্ধার হয় চম্পাদেবীর হাত-পা বাঁধা দেহ। পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পারে, নিখোঁজ হওয়ার গল্প ফেঁদে অভিযুক্ত বিষয়টির দিশা বদলে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু পুলিশি জেরায় অভিযুক্তের কথায় অসংলগ্নতা ধরা পড়ে। তারপরই সত্যজিৎকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।পুলিস মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বসিরহাট জেলা হাসপাতালে পাঠিয়েছে।