কারমেল কান্ডের রেশ না কাটতেই শহরের অন্য স্কুলে ছাত্রীর যৌন নির্যাতনে অভিযুক্ত নৃত্যশিক্ষক

কারমেল কান্ডের রেশ না কাটতেই শহরের অন্য স্কুলে ছাত্রীর যৌন নির্যাতনে অভিযুক্ত নৃত্যশিক্ষক

কারমেল কান্ডের রেশ না কাটতেই ফেরও  শহরের স্কুলে ছাত্রীর যৌন নির্যাতনের ঘটনা, কমলা গার্লস স্কুলের নবম শ্রেনীর ছাত্রীর যৌন নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত অশিক্ষক কর্মচারী, আপাপতত পুলিশি হেফাজতে, ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা।

অভিযোগ, বৃহস্পতিবার নবম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে যৌন হেনস্থা করেন স্কুলেরই অশিক্ষক কর্মী মলয় বড়ুয়া। বাড়ি ফিরে সবকথা জানায় নির্যাতিতা ছাত্রী। তার মুখে সবকথা শোনার পর শুক্রবারই থানায় অভিযোগ দায়ের করে ওই ছাত্রীর পরিবার। অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্তকে। এদিকে বিক্ষোভের আশঙ্কায় শনিবার সকাল থেকেই কমলা গার্লসে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়।

ফেসবুকে লেখা স্কুলেরই এক প্রাক্তন ছাত্রীর বয়ান অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে৷ সেদিন স্কুলে স্পোর্টস ছিল৷ স্কুলের নবম শ্রেণির এক ছাত্রী শারীরিক অসুস্থতা বোধ করায় ক্লাসে চলে যায়৷ সেখানেই স্কুলের এক অশিক্ষক কর্মচারী তাকে মোবাইল দেখানোর অছিলায় যৌন নিগ্রহ করে বলে অভিযোগ৷ ফেসবুকের ওই পোস্টে স্কুলের ওই প্রাক্তন ছাত্রীর দাবি, এর পর স্কুল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে৷ মেয়েটিকে সাসপেন্ড করার হুঁয়িশারিও দেয়৷

ছাত্রী ও তার এক সহপাঠীর দাবি, সঙ্গে সঙ্গে এর প্রতিবাদ করে তারা। কিন্তু দু’জনকেই মুখ বন্ধ রাখার হুমকি দেওয়া হয়!অভিযুক্তর শাস্তির দাবির পাশাপাশি স্কুলের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে ছাত্রীর পরিবার।