ছেলেকে খুন করে থানায় আত্মসমর্পন বাবার

ছেলেকে খুন করে থানায় আত্মসমর্পন বাবার

নিজের ছেলেকে শ্বাসরোধ করে খুন করে থানায় আত্মসমর্পণ বাবার, ঘটনাটি কোচবিহার ২ নম্বর ব্লকের উত্তর কালজানি গ্রামের। ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে আলিপুরদুয়ার থানা।

পুলিশ সূত্রে খবর, শ্বাসরোধ করে ওই ব্যক্তি নিজের ছেলেকে খুন করে৷ ২৮ বছর বয়সী কার্তিক বর্মনের সঙ্গে তাঁর স্ত্রী রেখা বর্মনের সাংসারিক অশান্তি চলছিল। বুধবার তাঁদের ৬ বছরের ছেলে সঞ্জয় বর্মনের জ্বর থাকায় তাঁকে পাশেই নিজের বাপের বাড়িতে রেখে পরিচারিকার কাজে বেড়িয়ে যান রেখা। এর পরে বেলা দুটো নাগাদ কার্তিক বর্মন এসে সঞ্জয়কে তাঁর শ্বশুর বাড়িতে নিয়ে যায়।সন্ধ্যায়  মা বাড়িতে ফিরলে দেখতে পান ছেলে পাশের বাড়িতে নেই। তার মনে হয় হয়ত জ্বরে আক্রান্ত ছেলে-কে নিয়ে ডাক্তার দেখাতে গেছে স্বামী। এর পর রাতের দিকে আলিপুর  থানা থেকে একটি ফোন আসে। তাতেই জানা যায় ছেলে-কে মেরে খাটের নিচে লুকিয়ে রেখেছে কার্তিক।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, প্রায়ই কার্তিক বর্মণের সঙ্গে ঝগড়া লেগে থাকত তাঁর স্ত্রীর। গতরাতে সেই ঝগড়া চরমে ওঠে। পৌঁছালে নিজের ছেলেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায় কার্তিক। মৃত্যু হয় সঞ্জয় বর্মনের (৭)। এরপর রাতেই সে আলিপুরদুয়ার থানায় আত্মসমর্পণ করে।


পেশায় দিনমজুর কার্তিক রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে এই কাজ করেছে বলে জানায়। ঘটনায় আলিপুরদুয়ার থানার তরফে পুণ্ডিবাড়ি থানায় যোগাযোগ করা হলে পুণ্ডিবাড়ি থানার পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।