প্রোমোটিং বিবাদের জেরে খুন এক যুবক

প্রোমোটিং বিবাদের জেরে খুন এক যুবক

 প্রোমোটিং নিয়ে বিবাদের জেরে কড়েয়ায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির। আজ সকালে কড়েয়ার ব্রাইট স্ট্রিটে ঘটনাটি ঘটে। মৃতের নাম আতিকুর রহমান। ঘটনার পর অভিযুক্তের বাড়ি ভাঙচুর করে উত্তেজিত জনতা। পুলিশ সূত্রে খবর, একসঙ্গে প্রোমোটিং করলেও গত ৬ মাস ধরে একটি বহুতল তৈরি নিয়ে ফজরুলের বিবাদ চলছিল ব্যবসার পার্টনার শেখ ইদ্রিসের। আজ তা চরম আকার নেয়। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, আজ সকালে ব্রাইট স্ট্রিটে বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে থাকার সময় ফজরুল রহমানকে খুব কাছ থেকে গুলি করে পালায় শেখ ইদ্রিস। এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে গেলে ফজরুলকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

গত কয়েক বছরে প্রোমোটিংয়ের ব্যবসা করে প্রভাব বাড়িয়েছিল ইদ্রিস। তথাকথিত আভিজাত্যের ছাপ স্পষ্ট হয়ে উঠছিল ইদ্রিসের বাড়ি ও অফিসে। কাজের সূত্রেই এলাকায় দুষ্কৃতীদের সঙ্গে রোজ ওঠাবসা ছিল তার। এলাকায় ধীরে ধীরে ‘ডন’ বলে পরিচিত হয়ে উঠছিল ইদ্রিস। হুমকি, এলাকা দখল-সহ একাধিক দুষ্কর্মের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। ইদ্রিসের বিরুদ্ধে ক্ষোভ জমতে শুরু করেছিল স্থানীয়দের মধ্যে। থানায় একাধিকবার তার নামে নালিশও করেন স্থানীয়রা।

পুলিশ সূত্রে খবর, শেখ ইদ্রিস ওরফে ভোলা ও আতিকুর প্রতিবেশী। দু'জনেই এলাকায় প্রোমোটিং, দালালি, সিন্ডিকেট ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত। স্থানীয় একটি আবাসনের ফ্ল্যাটের টাকার বখরাকে কেন্দ্র করে দু'জনের মধ্যে ঝামেলা বাধে। আতিকুরের কাছ থেকে টাকা পেত ভোলা। একাধিকার চাইলেও তা আতিকুর দেননি বলে অভিযোগ।  এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু'জনের মধ্যে ঝামেলা বাধে। একাধিকার তর্কাতর্কি ও বাদানুবাদ হয়।

 

মঙ্গলবার সকালে আতিকুরকে প্রকাশ্যে গুলি করে খুন করার অভিযোগ ওঠে ইদ্রিসের বিরুদ্ধে। এলাকায় ‘ভালো ছেলে’ বলে পরিচিত আতিকুরের মর্মান্তিক পরিণতি মেনে নিতে পারেননি স্থানীয়রা। যাতে মনে করা হচ্ছে, অফিসে বসেই বোমা বানাত