জাতীয় স্বাস্থ্যবিমার খুঁটিনাটি প্রকাশ করলো কেন্দ্র

জাতীয় স্বাস্থ্যবিমার খুঁটিনাটি প্রকাশ করলো কেন্দ্র

বিশ্বের বৃহত্তম স্বাস্থ্যবিমার কথা বাজেটে ঘোষণা করেছিলেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। গতকাল শুক্রবার স্বাস্থ্য বিমার খুঁটিনাটি স্পষ্ট করেছে কেন্দ্র। জানানো হয়েছে, নিখরচায় চিকিৎসা মিলবে 'মোদী কেয়ার' -এ। অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বাজেটে যে 'আয়ুষ্মান ভারত' বা জাতীয় স্বাস্থ্য বিমা প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছেন, তাতে দেশের ১০ কোটি পরিবারের জন্য ৫ লক্ষ টাকার স্বাস্থ্যবিমার প্রিমিয়ামের পুরো দায়ই নেবে সরকার। কেন্দ্র ৬০%। বাকি ৪০% দেওয়ার কথা রাজ্যগুলির।

নীতি আয়োগের কর্তাদের হিসেব, ৫ লক্ষ টাকার স্বাস্থ্যবিমার জন্য পরিবার প্রতি প্রিমিয়াম দাঁড়াবে ১,০০০-১,২০০ টাকা। বছরে মোট ১০-১২ হাজার কোটি। প্রকল্পটি কার্যকর করতে হবে রাজ্যগুলিকেই। আগামী সপ্তাহ থেকে রাজ্যগুলির সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা শুরু করবে কেন্দ্র। এই পর্যন্ত ঠিক ছিল। কিন্তু প্রশ্ন হলো, সব রাজ্যগুলি কি এতে যোগ দেবে?

কেন্দ্র এর টাকা জোগাবে কোথা থেকে? বাজেটে বরাদ্দ হয়েছে মাত্র ২ হাজার কোটি। নীতি আয়োগের সদস্য বিনোদ পাল বলেন, ' শিক্ষা-স্বাস্থ্য সেস থেকে যে ১১ হাজার কোটি টাকা আয় হবে, সেই অর্থ কাজে লাগানো হবে। ' তবে প্রথম বছরে মাত্র ৫-৬ হাজার কোটি টাকা প্রয়োজন হবে বলে মনে করছে কেন্দ্র। কারণ প্রকল্পটি চালু হতে এখনও কয়েক মাস দেরি।

২ অক্টোবর বা ১৫ অগস্ট ঢাকঢোল পিটিয়ে তা চালু করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী। মহকুমা ও তার উপরের স্তরের হাসপাতালে যে সব চিকিৎসা মেলে, তার অধিকাংশই এই বিমার আওতায় থাকবে। ক্রিটিকাল কেয়ার, ট্রমা ও আপৎকালীন চিকিৎসাও এই বিমার আওতায় আসবে। সরকার বিভিন্ন চিকিৎসা ও পরিষেবার খরচ বেঁধে দেবে। বেশির ভাগ সরকারি হাসপাতাল ও তালিকাভুক্ত বেসরকারি হাসপাতালে এই সুবিধা মিলবে।

যে ১০ কোটি পরিবার এর সুবিধা পাবেন, তার মধ্যে ৮ কোটি বিপিএল তালিকাভুক্ত। আর্থ-সামাজিক জাতিগত সুমারিতে বঞ্চিতদের তালিকায় থাকা বাকি ২ কোটি পরিবার এর সঙ্গে যোগ হবে। নীতি আয়োগ জানাচ্ছে, পরিবারের সদস্যসংখ্যার উপরে বাধানিষেধ থাকছে না। ভিন্ রাজ্যে গিয়ে চিকিৎসা পেতেও অসুবিধা হবে না। নথি লাগবে না। আধার কার্ডও বাধ্যতামূলক নয়।

এই বিষয়ে নীতি আয়োগের উপদেষ্টা অলোক কুমার বলেন, রাজ্যগুলি কোনও ট্রাস্ট তৈরি করে, সেখানে প্রিমিয়ামের টাকা জমা করে এই প্রকল্প চালাতে পারে। অথবা প্রতিযেগিতার মাধ্যমে কোনও বিমা সংস্থাকে দায়িত্ব দিতে পারে।