বন্ধ হচ্ছে ফ্রি সার্ভিস! এবার থেকে পাসবই আপডেট করতে ও এটিএম থেকে টাকা তুললেও চার্জ কাটা হবে

বন্ধ হচ্ছে ফ্রি সার্ভিস! এবার থেকে পাসবই আপডেট করতে ও এটিএম থেকে টাকা তুললেও চার্জ কাটা হবে

নোট বাতিলের পর ফের বড়সড় ধাক্কা মধ্যবিত্তের জন্য। দ্রুতই ব্যাঙ্কের যাবতীয় ফ্রি সার্ভিস বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এবার থেকে ব্যাঙ্কে যে কোনও কাজের জন্যই খরচ করতে হবে নগদ টাকা। যেমন ধরা যাক পাসবই আপডেট বা মোবাইল নম্বর আপডেট। দ্রুতই এই কাজগুলির জন্যই আলাদা আলাদা করে চার্জ ধার্য করা হবে। ইতিমধ্যেই কয়েকটি ব্যাঙ্ক এই প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে আংশিকভাবে। দ্রুতই স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া-সহ অন্যান্য রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিও এই একই পথে হাঁটতে পারে বলে জানিয়েছে সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম 'ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস'।
তাদের সাম্প্রতিকতম রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, প্রত্যেক অ্যাকাউন্টধারীকেই এবার থেকে ব্যাঙ্কের যাবতীয় পরিষেবার জন্য নগদ টাকা খরচ করতে হবে। ইতিমধ্যেই ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া ঘোষণা করেছে, ২০ জানুয়ারি থেকে কোনও গ্রাহক তাঁর মোবাইল নম্বর বা বাড়ির ঠিকানা বদলাতে চাইলে ২৫ টাকা খরচ করতে হবে। ডুপ্লিকেট পাসবুকের জন্য এখন কোনও টাকা না লাগলেও ২০ জানুয়ারি থেকে লাগবে ৫০ টাকা করে, দাবি ওই রিপোর্টে। ২০ তারিখের পর থেকে ইন্টারেস্ট সার্টিফিকেট পেতেও লাগবে ৫০ টাকা করে। KYC সংক্রান্ত কোনও নথি আপডেট করতে লাগবে ৫০ টাকা করে।
রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, এটিএম থেকে টাকা তুলতে বা ডিজিটাল লেনদেন করতে এখন বাড়তি চার্জ দিতে হয় না। কিন্তু ২০ তারিখের পর থেকে তাতেও বসছে নয়া চার্জ। প্রতিবার এটিএম থেকে টাকা তুলতে দিতে হবে ওই চার্জ। ইন্টারনেট মারফত কাউকে টাকা পাঠাতে বা লেনদেন করতেও বাড়তি টাকা লাগবে। 
আপাতত ব্যাঙ্কের ফ্রি পরিষেবা শেষ হয়ে যাওয়ার খবরে দেশ জুড়ে আলোড়ন পড়ে গিয়েছে। যদিও আর একটি সূত্র এই খবরের সত্যতা স্বীকার করেনি। ভারতীয় ব্যাঙ্ক অ্যাসোসিয়েশন-এর একটি সূত্রকে উদ্ধৃত করে আর এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়াতে যে খবর ছড়িয়েছে তা ভুয়ো। 
এবছরের ২০ জানুয়ারি থেকে ব্যাঙ্কের ফ্রি সার্ভিস মোটেও বন্ধ হয়ে যাচ্ছে না। যদিও তারা এও জানিয়েছে, একগুচ্ছ পরিষেবার দাম নিয়ে নিয়মিত চিন্তাভাবনা করছে কেন্দ্র। তবে এখনই কোনও ফ্রি পরিষেবার জন্য পয়সা খরচ করতে হচ্ছে না গ্রাহকদের। সংগঠনটি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ' জনগণকে সতর্ক করে জানানো হচ্ছে, আরবিআই এরকম কোনও নির্দেশ জারি করেনি। সোশ্যাল মিডিয়াতে যে খবর ছড়াচ্ছে তা সম্পূর্ণ ভুয়ো।'