পাহাড় নিয়ে শান্তির বার্তা দিলেন রাজনাথ কিন্তু মোর্চার প্রতি সমর্থন প্রসঙ্গ এড়িয়ে গেলেন

পাহাড় নিয়ে শান্তির বার্তা দিলেন রাজনাথ কিন্তু মোর্চার প্রতি সমর্থন প্রসঙ্গ এড়িয়ে গেলেন

অবশেষে দার্জিলিং পরিস্থিতি নিয়ে মুখ খুলল কেন্দ্র। রবিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ পরপর চারটি টুইট করে পাহাড়ে শান্তি ফিরিয়ে আনার আহ্বান জানান। পাহাড়ের পরিস্থিতিতে গুরুঙ্গ চাইছেন, ত্রিপাক্ষিক আলোচনা ডাকুক কেন্দ্র। আর বিজেপি দল হিসেবে মোর্চার পাশে দাঁড়াক। কারণ, প্রায় দশ বছর তাঁরা বিজেপির শরিক। ২০১৪ সালে লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি যে ইস্তাহারটি তৈরি করে, সেখানে গোর্খাল্যান্ড সম্পর্কে কিছুই বলা ছিল না। শেষ মুহূর্তে গুরুঙ্গের চাপেই গোর্খাল্যান্ডের প্রতি নীতিগত সমর্থনের কথা ঢোকানো হয়। সেই গুরুঙ্গের নেতৃত্বে গত ৮ জুন রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকের সময়ে প্রথম অশান্ত হয় পাহাড়। তার পর থেকে দশ দিন দিল্লি থেকে কোনও সরাসরি বার্তা শোনা যায়নি। এর মধ্যে গত শুক্রবার মমতা-রাজনাথ কথা হয়েছে। আবার সুরেন্দ্র সিংহ অহলুওয়ালিয়াকে সঙ্গী করে রাজনাথের সঙ্গে দেখা করেন মোর্চা নেতা রোশন গিরি। এমনকী, প্রথমে দশ কোম্পানি আধা সেনা দিয়ে দিলেও দ্বিতীয় বার রাজ্যের কাছ থেকে লিখিত আর্জিও চেয়েছিল কেন্দ্র।
এ দিন যদিও রাজনাথের টুইটে গুরুঙ্গদের সমর্থনের কোনও বার্তা ছিল না। টুইট করে রাজনাথ বলেন, ' ভারতের মতো গণতন্ত্রে অশান্তির মাধ্যমে সমাধানসূত্র মেলে না। পারস্পরিক আলোচনার মাধ্যমে প্রত্যেকটি সমস্যার সমাধান পাওয়া সম্ভব। উপযুক্ত পরিবেশে সংশ্লিষ্ট সমস্ত পক্ষ সমস্ত মতপার্থক্য কথার মাধ্যমে দূর করুক। ' কেন্দ্র এই আলোচনায় পক্ষ হবে, সে কথাও তিনি কোথাও বলেননি।
পাহাড়ে অশান্তি প্রসঙ্গে রাজনাথ বলেন, ' দার্জিলিং এবং তার আশপাশের মানুষের কাছে আমার আবেদন, শান্ত থাকুন। আজ সকালে মমতার সঙ্গে কথা হয়েছে। উনি দার্জিলিঙের পরিস্থিতির কথা জানিয়েছেন। '