মনোনয়নের সময় বাড়তে পারে এই আশায় পঞ্চায়েত ভোটের না দেওয়া আসনে প্রার্থী খুঁজতে শুরু করল বিরোধীরা

মনোনয়নের সময় বাড়তে পারে এই আশায় পঞ্চায়েত ভোটের না দেওয়া আসনে প্রার্থী খুঁজতে শুরু করল বিরোধীরা

পঞ্চায়েত নির্বাচন কি আদৌ পিছিয়ে যেতে পারে? তা জানা নেই কারোর। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের কাজকর্ম থেকে এটাই মনে করা হচ্ছে যে পিছিয়ে যেতে পারে পঞ্চায়েত নির্বাচন। তাই এই পরিস্থিতিতে পঞ্চায়েত পর্বে নতুন করে আশায় বুক বেঁধেছে বিরোধীরা। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার দিন বাড়তে পারে, এই আশায় ফের প্রার্থী খোঁজার কাজ শুরু করেছে বিরোধী দলগুলি।

উল্লেখ্য, আগামী ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত পঞ্চায়েতের নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করেছে হাইকোর্ট। পঞ্চায়েত ভোট পিছিয়ে যেতে পারে, এমন সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছে। রাজনৈতিক নেতা-নেত্রী থেকে প্রার্থী তদোপরি আমজনতা-সবার নজর এখন হাইকোর্টের সিদ্ধান্তের দিকে। 

বিজেপি এই ফাঁকে না দেওয়া আসনে নতুন প্রার্থী খোঁজার কাজ শুরু করে দিয়েছে। মুর্শিদাবাদের কংগ্রেস প্রার্থী আবদুল রউফের বক্তব্য, মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় দলের নেতা-নেত্রী, প্রার্থী সকলেই আক্রান্ত হয়েছেন। আগামী ১৬ এপ্রিল হাইকোর্ট যদি ফের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার নির্দেশ দেয় তাহলে একটাই আবেদন, যথাযথ পুলিশি ব্যবস্থা ও হাইকোর্টের পর্যবেক্ষণ যেন থাকে।

আরও বেশি আসনে যাতে প্রার্থী দেওয়া যায়, তার প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছে কংগ্রেস। সিপিএম নেতৃত্ব প্রার্থীদের পরামর্শ দিয়েছে, প্রয়োজনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন পর্যন্ত এলাকার বাইরে থাকতে। যেহেতু পঞ্চায়েত নির্বাচনের ভবিষ্যৎ হাইকোর্টের দরজায় গিয়েছে, ফলে আগামিদিনে মনোনয়নত্র জমা দেওয়ার দিন বাড়লে তাতে নিরাপত্তা আগের বারের থেকে বেশি থাকবে বলে মনে করছে বাম নেতৃত্ব। সেই কারণে নতুন করে যাতে আগেরবারের না দেওয়া আসনে প্রার্থী দেওয়া যায় তার কাজে নেমে পড়েছে বামেরা।