রাজ্যসভার সদস্যপদ থেকে ইস্তফা মুকুলের, প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় কি বললেন তিনি?

রাজ্যসভার সদস্যপদ থেকে ইস্তফা মুকুলের, প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় কি বললেন তিনি?


রাজ্যসভার সদস্যপদ ছাড়ছেন, এই ঘোষণা আগেই করে দিয়েছিলেন মুকুল রায়। আজই তাঁর দিল্লি যাওয়ার কথা ছিল। কথামতো বুধবার উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডুর হাতে ইস্তফাপত্র তুলে দিয়ে রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিলেন মুকুল রায়। ফলে একদা তৃণমূলের সেকেন্ড হাই কম্যান্ডের সঙ্গে আর কোনো সম্পর্ক রইলো না দলের। বাংলার রাজনীতিতে তাঁকে চাণক্য বলা হয়। উল্লেখ্য, তৃণমূলকে সাংগঠনিক দিক থেকে শক্তিশালী করে তোলার ক্ষেত্রে সেনাপতির ভূমিকা নিয়েছিলেন এই মানুষটি। আর আজ তিনিই দলের আর কেউ নন। বলা যায়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর দলকে যদি কেউ হাতের তালুর মতো চিনে থাকেন তবে তিনি মুকুল রায় ছাড়া আর কেউ নন। দলের সাথে ও দলের সদস্যদের সাথে দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর জানিয়ে দিয়েছিলেন, তৃণমূলে আর নয়। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে সাংসদ পদ ছাড়া সম্পন্ন হল আজ।
উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডুর হাতে ইস্তফাপত্র জমা দেন তিনি। কেন তিনি দল ছাড়তে চাইছেন তা জানিয়ে, পুরো বিষয় বিবেচনা করতে বলেন। পরে সাংবাদিক বৈঠক করে তাঁর দল ছাড়ার কথা প্রকাশ্যেও জানান। হৃদয়ে গভীর যন্ত্রণা নিয়েই এ কাজ করেছেন বলে প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন মুকুল রায়।