সব বাজিই বন্ধ হোক চান পরিবেশবিদরা

সব বাজিই বন্ধ হোক চান পরিবেশবিদরা

দিল্লিতে এ বার দীপাবলীতে সমস্ত রকম বাজি বিক্রির উপর যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে দেশের শীর্ষ আদালত। এরাজ্যেও এমন একটি নিষেধাজ্ঞা জারি করুক সুপ্রিম কোর্ট এমনটাই মত পরিবেশবিদদের। কালীপুজোর ঠিক পরেই শ্বাসকষ্ট, হাঁপানির রোগীদের ভিড় এক ঝটকায় অনেকটা বেড়ে যায়, বলছেন শহরের চিকিৎসকেরা। সরাসরি শ্বাসযন্ত্রে ঢুকে যায়, এমন ভাসমান ধূলিকণার পরিমাণ কালীপুজো ও তার পর দু’-তিন দিন মানুষের সহনশীল মাত্রার দ্বিগুণ বা তারও বেশি হয়। পশ্চিমবঙ্গ দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের সমীক্ষা থেকে এই তথ্য বেরিয়ে এসেছে।
পরিবেশকর্মী সুভাষ দত্ত বলেন, আমি দিন কয়েকের মধ্যেই সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানিয়ে বলব, শুধু দিল্লি বা তার আশপাশে নয়, গোটা দেশেই সমস্ত রকম বাজি নিষিদ্ধ করা হোক। 
পশ্চিমবঙ্গে শব্দবাজি কার্যত নিষিদ্ধ। তবু প্রতি বছর কালীপুজো-দেওয়ালিতে নিয়ম করে চলে সেই নিয়ম ভাঙা। অপদস্থ হতে হয় পর্ষদকে। এই অবস্থায় পর্ষদের কেউ কেউ মনে করছেন, সব ধরনের বাজি নিষিদ্ধ হওয়াটাই শব্দদৈত্যকে জব্দ করার মোক্ষম দাওয়াই হতে পারে।