দিঘার সমুদ্রে প্রবল জলোচ্ছ্বাস, সমুদ্রে নেমে মৃত্যু এক পর্যটকের

দিঘার সমুদ্রে প্রবল জলোচ্ছ্বাস, সমুদ্রে নেমে মৃত্যু এক পর্যটকের

প্রবল জলোচ্ছ্বাস দিঘার সমুদ্রে। সেই সময় সমুদ্রতটের গার্ড ওয়ালে বসে ঢেউ দেখছিলেন এক পর্যটক। জলোচ্ছ্বাসে নিজেকে সামলাতে না পেরে তলিয়ে যান তিনি। পরে ওল্ড দিঘার সি-হক হোটেল লাগোয়া সমুদ্র উপকূল থেকে তাঁর দেহ উদ্ধার করেছে নুলিয়ারা। ঘটনাটি ঘটেছে আজ বুধবার সকালে ওল্ড দিঘার বিশ্ববাংলা ঘাটে। জানা গিয়েছে, প্রবল জলোচ্ছ্বাসের মধ্যেই সমুদ্রে নামার চেষ্টা করেন ওই পর্যটক। ঢেউয়ের ধাক্কায় পাথরের উপর আছড়ে পড়েন তিনি। তাতেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

মৃত পর্যটকের নাম চন্দন মুখোপাধ্যায়। বাড়ি উত্তর চব্বিশ পরগনার কাঁচরাপাড়ায়। স্ত্রী ও দুই ছেলে-মেয়েকে নিয়ে দিঘার বেড়াতে এসেছিলেন চন্দনবাবু। পুলিশ জানিয়েছে, বুধবার সকাল সাতটা নাগাদ ওল্ড দিঘার বিশ্ববাংলার ঘাটের কাছে গার্ডওয়ালে বসে সমুদ্রের জলোচ্ছ্বাস দেখছিলেন তিনি। সঙ্গে ছিলেন স্ত্রী ও দুই ছেলে-মেয়েও। গা ভেজানোর জন্য উত্তাল সমুদ্রে নামার চেষ্টা করেন চন্দনবাবু। তখনই পাথরে গিয়ে ধাক্কা খেয়েছিলেন। 

বুধবার সকালে দিঘা থেকে ৩০০টি কচ্ছপ উদ্ধার করল পুলিশ। ঘটনায় গ্রেপ্তার হয়েছেন একজন। দীর্ঘদিন ধরে দিঘার কচ্ছপ পাচার হচ্ছে। এদিন গোপনসূত্রে খবর পেয়ে ৩০০টি জীবিত কচ্ছপ-সহ ওই পাচারকারীকে আটক করেছে পুলিশ।