বেলঘরিয়ায় রেল লাইন পার হতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ল কলেজ ছাত্র, অবরোধ

বেলঘরিয়ায় রেল লাইন পার হতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ল কলেজ ছাত্র, অবরোধ

রেল লাইন পার হতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়লেন এক ছাত্র। সোমবার সন্ধ্যার বেলঘরিয়া স্টেশনে এই ঘটনাটি ঘটেছে।
এদিন সন্ধ্যায় কলেজের ক্লাস শেষ করে বেলঘরিয়া পলিটেকনিক (রামকৃষ্ণ মিশন শিল্প পীঠ)-এর প্রথম বর্ষের দুই পড়ুয়া চার নম্বর প্ল্যাটফর্মের দিক থেকে লাইন পেরিয়ে এক নম্বরের দিকে যাচ্ছিলেন। তিন নম্বর লাইনে হঠাৎ চলে আসে শিয়ালদহ-রানাঘাট গ্যালপিং লোকাল। দুই পড়ুয়া সেই ট্রেনের ধাক্কায় ছিটকে পড়েন। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় এক ছাত্রের। অন্য জন আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি।
পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম সোহম রায় (১৭)। বাড়ি বেহালা সরশুনায়। আহতের নাম অরুণাভ দাস (১৭)। তাঁর বাড়ি হুগলির মানকুণ্ডুতে। বেলঘরিয়া স্টেশনে তখন প্রচুর নিত্যযাত্রী ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। সন্ধ্যা ৫টা ৫০ মিনিট নাগাদ তাঁদের চোখের সামনেই দুর্ঘটনা ঘটে যায়। সহপাঠীর মর্মান্তিক মৃত্যুর খবর পেয়ে কয়েকশো ছাত্র চলে আসেন স্টেশনে। সেই সময়েই বেলঘরিয়ায় পৌঁছয় কৃষ্ণনগর লোকাল। পড়ুয়ারা লাইনে বসে পড়ে সেই ট্রেন আটকে দেন। তাঁদের সঙ্গে যোগ দেন স্টেশনে অপেক্ষমাণ যাত্রীদের একাংশ। বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, গ্যালপিং লোকালের আসার কথা স্টেশন-কর্তৃপক্ষ ঘোষণাই করেননি। তাই এই দুর্ঘটনা। রেল কর্তৃপক্ষের দাবি, বেলঘরিয়ায় গ্যালপিং ট্রেন আসার খবর আগাম ঘোষণা করা হয়েছিল। হয়তো ছাত্রেরা তা শুনতে পাননি।
গতকাল এই অবরোধের জেরে শিয়ালদহ মেন লাইনে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। আপ ও ডাউন ট্রেনগুলি দাঁড়িয়ে যায় বিভিন্ন স্টেশনে। আটকে পড়েন নিত্যযাত্রী। পড়ুয়াদের বোঝায় পুলিশ। বেলঘরিয়া মিশনের এক সন্ন্যাসী-মহারাজও স্টেশনে গিয়ে ছাত্রদের বোঝান। ঘণ্টাখানেক পরে ওই লাইনে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হতে শুরু করে।
রেল-কর্তৃপক্ষ জানান, অবরোধের জেরে ছ’‌জোড়া লোকাল ট্রেন বাতিল হয়েছে। ১০টি ট্রেন গড়ে ৫০ মিনিট দেরিতে চলে। এই নিয়ে পরপর তিন দিন অবরোধ এবং ট্রেনের যান্ত্রিক ত্রুটির জেরে ভুগতে হল যাত্রীদের।