আনাড়ি ছেলেকে বাস চালাতে বলে উধাও চালক, বোলপুরে দুর্ঘটনায় স্কুলবাস

আনাড়ি ছেলেকে বাস চালাতে বলে উধাও চালক, বোলপুরে দুর্ঘটনায় স্কুলবাস

স্কুলবাস চালানোর দায়িত্ব দেওয়া হলো এক আনাড়ি ছেলেকে। সেই দায়িত্ব দিলেন বাসের চালকই। যার ফল, দুর্ঘটনা। দ্রুতগতিতে স্কুল বাস নিয়ে সোজা বিদ্যুতের পোস্টে ধাক্কা। অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন বোলপুরের কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ের ১৩ জন ছাত্রছাত্রী। চালকের ছেলে মনিমুল শেখকে আটক করেছে পুলিশ ।

পুলিশ সূত্রে খবর, বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রান্তিকের কেন্দ্রীয় বিদ্যালয়ের বাসটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। ছুটি হওয়ার পর ওই বেসরকারি ম্যাক্সিবাস বোলপুর থেকে নানুরের পাপুড়ি যাচ্ছিল। বাসের চালক ছিলেন শেখ আমাল। তাঁর বাড়ি নানুরের যজ্ঞনগরে। অভিযোগ বোলপুরের শেষ প্রান্তে আরতি সিনেমা হলের কাছে কাজ আছে বলে চালক নেমে যান। এরপর স্টিয়ারিং হাতে নেয় চালকের ছেলে। সে গাড়ি চালাতে শুরু করে। মুহূর্তের মধ্যে বাসটির গতি বেড়ে যায়। সে সময় বাসে থাকা ছাত্রছাত্রীরা নিজেদের মধ্যে গল্পগুজবে ব্যস্ত ছিল। আচমকা স্কুলবাস মুলুকের মিরেপাড়ার কাছে নিয়ন্ত্রণ হারায় এবং রাস্তার পাশে পরপর দুটি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ধাক্কা দেয়। এরপর বাসটি জল প্রকল্পের একটি পাইপে ধাক্কা মেরে গাছে আটকে যায়। গাছে না আটকালে বাসটি হাইড্রেন খালে গিয়ে পড়ত। একই ভাবে বিদ্যুতের তার পড়লেও বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারত বলে জানিয়েছেন স্থানীরা।

প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, বাসটি দ্রুত গতিতে আসছিল। আচমকা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রথমে রাস্তার পাশে ইলেকট্রিক পোস্টে ধাক্কা মারে এবং নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে গাছে আটকে যায়। গ্রামবাসীরা তাদের উদ্ধার করে গাড়িতে করে হাসপাতালে পাঠায়।

ঘটনায় ১৩ জন ছাত্রছাত্রী আহত হয়েছে। এদের মধ্যে চার জন বালিকা এবং ন’জন বালক। একজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে অন্যত্র পাঠানো হয়।