বিজেপির বাইক ব়্যালি বন্ধ, দিলীপ-মুকুল মতবিরোধ প্রবল, কি মন্তব্য করলেন মুকুল?

বিজেপির বাইক ব়্যালি বন্ধ, দিলীপ-মুকুল মতবিরোধ প্রবল, কি মন্তব্য করলেন মুকুল?

বিজেপি-র বাইক ব়্যালি বন্ধ হয়ে গেল মতবিরোধের জেরে। বিজেপির দুই নেতা দিলীপ ঘোষ ও মুকুল রায়ের মধ্যে মতবিরোধের জেরে কর্মী-সমর্থকেরা বুঝে উঠতে পারেননি যে তারা কি করবেন।
ব়্যালি নিয়ে অশান্তি তীব্র হওয়ার পর এই কর্মসূচি শুক্রবারের মতো স্থগিত রাখার কথা ঘোষণা করে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। এদিন জোড়াবাগানে দিলীপ ঘোষ জানিয়ে দেন এই বিষয়ে অমিত শাহ, কৈলাস বিজয়বর্গীয়, শিবপ্রকাশের মতো কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। কেন্দ্রের সহযোগিতা না পেলে ব়্যালি করা সম্ভব নয়। বিজেপি রাজ্য সভাপতির এই বক্তব্যর পরই বাইক ব়্যালি বন্ধ রাখা হয়। দিলীপ ঘোষ ও বিজেপি নেতৃত্ব অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করে। তবে সে খবর মুকুল রায়ের কাছে পৌঁছেছিল কি না তা অবশ্য জানা যায়নি। সদ্য গেরুয়া শিবিরে আসা মুকুল জানিয়ে দেন ছেলেরা বাইক ব়্যালি করতে বদ্ধপরিকর। প্রাণ চলে গেলেও ব়্যালি হবেই। দুই প্রথম সারির নেতার মুখে এমন পরস্পরবিরোধী কথাবার্তায় কর্মী, সমর্থকদের মধ্যে ধোঁয়াশা তৈরি হয়। তারা বুঝতে পারছিলেন না ঠিক কী করণীয়। 
দিলীপ ঘোষ ও মুকুল রায়ের মতবিরোধ প্রকাশ্যে আসা অবশ্য রাজ্য রাজনীতিতে নতুন কিছু নয়। এর আগেও এরকম ঘটনা ঘটেছে। মুকুলের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার আগে থেকে যোগদান পর্ব পর্যন্ত নানা সময় তাঁর প্রতি তির্যক মন্তব্য করেছেন দিলীপ ঘোষ। নোয়াপাড়া বিধানসভার উপনির্বাচনের মুকুল রায়ের মনোনীত মঞ্জু বসু তৃণমূলে থাকার কথা ঘোষণা করেছিলেন। এই মঞ্জু বসু মুকুল রায়ের অনুগামী বলেই পরিচিত। এই ঘটনার জেরে খুব সাধারণভাবেই মুকুল রায়ের ওপর দল ততটা সন্তুষ্ট নয় এখন। শেষ পর্যন্ত দিলীপ ঘোষের অনুগামীদের দুটি কেন্দ্রে প্রার্থী করে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। বিশ্লেষকদের একাংশের ব্যাখ্যা উপনির্বাচনের লড়াইয়ে মুকুল ‘আত্মঘাতী’ গোল খাওয়ার পর বাইক ব়্যালি নিয়ে এই মন্তব্য করায় মুকুল রায় আরও একটু চাপে পড়লেন বৈকি।