ত্বককে নরম এবং দাগবিহীন করতে ব্যবহার করুন আঙুর

ত্বককে নরম এবং দাগবিহীন করতে ব্যবহার করুন আঙুর

আঙুর নানাবিধ রোগের হাত থেকে রক্ষা করে আমাদের। এর পাশাপাশি ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষা করতেও দারুণ কাজ দেয়। কিভাবে জেনে নেওয়া যাক:

* সূর্যের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে ত্বককে বাঁচায়: 
গরমকালে সূর্যের তাপে ত্বকের নানা সমস্যা আসে। অনেকেরই এই সময় মুখ কালচে হয়ে যাওয়া এবং পুড়ে মতো সমস্যা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে ত্বককে বাঁচাতে আঙুরের কোনও বিকল্প নেই। অল্প পরিমাণে আঙুর নিয়ে তা দিয়ে পেস্ট বানিয়ে সারা মুখে লাগিয়ে ফেলুন। ৩০ মিনিট রেখে মুখটা ধুয়ে ফেলুন। এমনটা নিয়মিত করলে দেখবেন মুখের ছোপ ছোপ দাগ কমে যেতে সময়ই লাগবে না।  

* ত্বকের বয়স কমায়: 
বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ত্বকে বলিরেখার সমস্যা আসা খুব স্বাভাবিক। কিন্তু সেই বলিরেখা যদি সময়ের আগে চলে আসে তাহলে মুশকিল। এক্ষেত্রে নিয়মিত এক মুঠো আঙুর যেমন খেতে হবে, তেমনি এই ফলটি দিয়ে বানানো ফেস প্যাক মুখে লাগাতে হবে। আঙুরে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা ত্বকের অন্দরে জমে থাকা টক্সিক উপাদানদের বের করে দেয়, যাদের কারণে মূলত ত্বকের বয়স বেড়ে যায়। 

* ত্বক হয়ে ওঠে নরম তুলতুলে: 
আঙুরের অন্দরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই, যা পুষ্টির ঘাটতি দূর করে ত্বককে ভিতর থেকে সুন্দর এবং নরম করে তুলতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে অল্প পরিমাণ আঙুর নিয়ে সেগুলি দিয়ে একটা পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে প্রথমে। তারপর সেই পেস্টটি মুখে লাগিয়ে ভাল করে মাসাজ করতে হবে। শেষে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফলতে হবে সারা মুখ। 

* স্কিন টোন উন্নত করে: 
দূষণ, স্ট্রেস এবং তাপ প্রবাহের কারণে অনেকেরই ত্বকের ক্ষতি হয়। বিশেষত যাদের দিনের বেশিরভাগ সময়ই রাস্তায় কাটাতে হয়, তাদের ত্বকের তো বেশি মাত্রায় ক্ষতি হয়ে থাকে। আঙুরে রয়েছে পলিফেনল নামক একটি উপাদান, যা এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। পরিমাণ মতো আঙুরের রস নিয়ে ভাল করে মুখে লাগাতে হবে। যতক্ষণ না রসটা শুকিয়ে যাচ্ছে, ততক্ষণ অপেক্ষা করার পর ঠান্ডা জল দিয়ে মুখটা ধুয়ে ফেলতে হবে। 

* সব ধরনের দাগ সারায়: 
ব্রণর দাগ থেকে শুরু করে যে কোনও ধরনের দাগকে মুছে ফেলতেই আঙুর দারুন কাজে আসে। আসলে ফলটির অন্দরে থাকা ভিটামিন সি, ত্বকের কোষেদের ভিতর থেকে সারিয়ে তোলে। অল্প পরিমাণ আঙুর এবং ১ চামচ নুনের। এই দুটি উপাদান একসঙ্গে মিক্সিতে ফেলে ভাল করে মিশিয়ে নিতে হবে। তারপর সেই পেস্টটা মুখে লাগিয়ে কম করে ১৫ মিনিট রেখে দিতে হবে। সময় হয়ে গেলে ধুয়ে পেলতে হবে মুখটা। এমনটা যদি নিয়মিত করতে পারেন।