যানজটের সমস্যা কাটাতে এবার আসছে উড়ুক্কু রিক্সা

যানজটের সমস্যা কাটাতে এবার আসছে উড়ুক্কু রিক্সা

দশটার-পাঁচটার অফিস যাতায়াতের মাধ্যম বাস-ট্রাম-ট্রেন। বাসে-ট্রেনে বাদুড় ঝোলা ঝুলে অফিসে পৌঁছাতে গিয়ে রোজরোজ নাজেহাল হতে হয় নিত্যযাত্রীদের। অফিসে গিয়ে বসের গালাগালি খাওয়া নিত্যদিনের অভ্যাসে দাঁড়িয়ে গেছে। এখন আবার বায়োমেট্রিক। লেট মানেই অ্যাবসেন্ট। মাথায় হাত। আর কলকাতার রাস্তায় হলে তো কারোর পৌষ মাস আর কারোর সর্বনাশ কথাটা মাথায় ঘুরপাক খেতে থাকে। একবার আটকালে দশ মিনিটের আগে তো কোনো গল্পই নেই। শীতে আটটার আগে ঘুম ভাঙে না। তাই যত শীঘ্র সম্ভব অফিসে পৌঁছানোর বানীটা নিছকই গল্পের মতো হয়ে থাকে। জ্যামে আটকে আকাশে এরোপ্লেন দেখলেই মনে হয় উফ আমারও যদি এরকম থাকত ভিড়কে কুছ পরোয়া নেহি বলে দিতাম। তবে আপনার ভাবার বিষয়টি বোধ হয় এবার সত্যি হতে চলেছে। এবার আপনি উড়বেন আকাশে।

রাস্তায় যানজট কাটিয়ে ঠিক সময় মতো গন্তব্যস্থলে পৌঁছে যেতে সাহায্য করতে শীঘ্রই আসছে উড়ুক্কু রিক্সা। পরিবেশবান্ধব এই রিক্সায় যদিও একাই চড়া যাবে,,তাতে কি। আপনি বাঁচলে বাপের নাম।

এবার দেখা যাক এই উড়ুক্কু রিক্সা আসলে কি-

এটি ব্যাটারিচালিত চাকা বিশিষ্ট একটি এয়ার যান। কম্পিউটারে ফুটে ওঠা গন্তব্য স্থলের ম্যাপ দেখে মিনিটের মধ্যেই যাত্রীকে পৌঁছে দেবে গন্তব্যস্থলে।

যদিও আরব-আমিরশাহিতে এখনি শুরু হয়েছে এয়ার রিক্সা, কিন্তু ভারতে আসার সম্ভাবনাও প্রবল, এই নিয়ে তাই কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে খসড়াও প্রস্তুত হয়েছে এমনটাই জানিয়েছেন অসামরিক বিমান পরিবহন প্রতিমন্ত্রী জয়ন্ত সিনহা ।

ভাড়া যদিও একটু বেশি। প্রতি কিমিতে চারটাকা করে দিতে হবে এই যানে চড়ার জন্যে। তবে কিছু পেলে তো কিছু তো দিতেই হয় তাই টাকা যাকগে, ভালোয় ভালোয় পৌঁছালই হল।

কয়েকদিন আগে উড়ান গাড়ির খবর বাজারে এসেছিল। যেটি মাটিতে চড়তে ও আকাশে উড়তে সক্ষম। ইতিমধ্যে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে উড়ান গাড়ি চালু হয়েছে কিন্তু ভারতে এখনও শুরুর কথা শোনা যায়নি।

তবে এয়ার রিক্সার বিষয়টি বেশ মজার বলা যেতেই পারে। শুরু হলে সকলেরই নিত্যদিনের কিছু সমস্যা কমবে বই বাড়বে না।

প্রযুক্তির যত উন্নতি হচ্ছে আমরাও তত বদলাচ্ছি। বিলাসবহুল জীবন যাত্রায় মনে হলেও আখেরে কিন্তু লাভ হচ্ছে আমাদেরই